বরিশালের গৌরনদীতে পৌনে ৫ বছরের এক শিশুকে গরম চামচের ছ্যাঁকা  দেওয়ার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় মামী শাহনাজ বেগমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার রাত ১১টায় উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নের কলাবাড়িয়া গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সেই সঙ্গে নির্যাতনের শিকার শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। বর্তমানে তাকে গৌরনদী উপজলো স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

গ্রেপ্তার শাহনাজ বেগম গৌরনদীর উত্তর বিজয়পুর এলাকার রমজান সরদারের স্ত্রী। নির্যাতনের শিকার শিশুটির নাম লামিয়া। সে মামার বাড়িতে থাকতো। এ ঘটনায় লামিয়ার বাবা শফিকুল ইসলাম বুধবার রাতে অভিযুক্ত শাহনাজের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতনের অপরাধ দমন আইনে গৌরনদী থানায় মামলা দায়ের করেন।

শফিকুল ইসলাম জানান, প্রায় ৭ বছর আগে আখি বেগমের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। এর প্রায় দুই বছর পর লামিয়ার জন্ম হয়। এরপর বিভিন্ন কারণে সম্পর্কের অবনতি হলে স্ত্রী আখি বেগম শিশু লামিয়াকে নিয়ে তার ভাই রমজান সরদারের বাড়িতে থাকতে শুরু করেন। রমজান সরদার ও শাহনাজ দম্পতি নি:সন্তান হওয়ায় তারা লামিয়াকে আদর-যত্ন করতেন। বছরখানেক আগে এ দম্পতি আরাফাত নামের এক শিশু দত্তক নেন। এরপর থেকেই কারণে-অকারণে লামিয়াকে মারধর করতেন শাহনাজ বেগম। গত ২১ নভেম্বর বিকেলে লামিয়া আরাফাতকে নিয়ে পাশের বাড়ির শিশুদের সঙ্গে খেলতে যায়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে লামিয়াকে বাসায় এনে মারধর করেন মামী শাহনাজ বেগম। এক পর্যায়ে গ্যাসের চুলায় স্টিলের চামচ গরম করে লামিয়ার নাভির নিচে ছ্যাঁকা দেন। এ সময় লামিয়ার চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে তাদেরকে বাড়িতে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। প্রতিবেশীদের সন্দেহ এড়াতে ওই রাতেই শাহনাজ বেগম লামিয়াকে নিয়ে তার বাবার বাড়ি কলাবাড়িয়া গ্রামে চলে যান।

শফিকুল ইসলাম আরও জানান, লামিয়ার মা দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ। তিনি ঘটনার সময় অন্য ঘরে ছিলেন। ভাইয়ের আশ্রয়ে থাকায় তিনি মেয়েকে নির্যাতনের প্রতিবাদ করার সাহস পাননি। বুধবার রাতে শাহনাজ বেগমের এক প্রতিবেশী বিষয়টি তাকে (শফিকুল) জানালে তিনি মেয়েকে উদ্ধারে পুলিশের সহায়তা চান।

গৌরনদী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. তৌহিদুজ্জামান জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর শাহনাজ বেগমের বাবার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার ও শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়েছে। লামিয়াকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। শাহানাজ বেগমকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

বিষয় : শিশুকে নির্যাতন গৌরনদী বরিশাল

মন্তব্য করুন