নোয়াখালীর সুবর্নচরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে।

বুধবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার ১নম্বর চরজব্বার ইউনিয়নের চর পানাউল্যা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত কাশেম মাঝি (৫৫) ওই গ্রামের মৃত ওয়াহেদ আলীর ছেলে। পুলিশ অভিযুক্ত সফি মিজিকে (৫৫) আটক করেছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জানা যায়, সুবর্নচর উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নের মৃত ওয়াহেদ আলী মাঝির ছেলে মাশেম মাঝির সঙ্গে একই গ্রামের সফি মিজির জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল। ওই বিরোধকে কেন্দ্র করে একাধিকবার শালিস বৈঠক হলেও সফিক মিজি শালিসের রায় মানেননি। এ নিয়ে নোয়াখালী জেলা জজ আদালতে একটি মামলা রয়েছে।

চরজব্বার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা মো. তরিকুল ইসলাম বলেন, বুধবার সন্ধ্যায় কাশেম মাঝি তার বাড়ি থেকে স্থানীয় ইমান আলী জামে মসজিদে মাগরিবের নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন। এসময় আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা সফি মিজি কাশেম মাঝির পথ রোধ করে তার বুকের মধ্যে ধারালো ছুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করতে থাকে। তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ও মসজিদের মুসল্লিরা এগিয়ে আসলে ঘাতক সফি মিজি দৌড়ে স্থানীয় একটি বাড়িতে আশ্রয় নেয়। এসময় ধাওয়া করে তাকে লোকজন আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। গুরুতর অবস্থায় কাশেম মাঝিকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে জরুরি বিভাগে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মোস্তাফিজুর রহমান রাত ৮টার সময় তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

চরজব্বার থানার ওসি মো. জিয়াউল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তাৎক্ষণিক এলাকাবাসী ধাওয়া করে ঘাতক সফি মিজিকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। তিনি ঘটনাস্থলে অবস্থান করছেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।