ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে মুক্তিযোদ্ধা দীলিপ কুমার নাগের দু’টি দোকানঘর ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছেন উপজেলার শাহবাজপুরের সাবেক চেয়ারম্যান স্বাধীনতাবিরোধী নান্না মিয়ার ছেলে ইকরামুল আমিন বাবু মিয়া। মঙ্গলবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। দীলিপ নাগ জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি।

পরে বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে দীলিপ নাগ অভিযোগ করেন, নিজের জমিতে তিনি তিন মাস আগে দু’টি দোকানঘর নির্মাণ করেন। পাশেই রয়েছে বাবু মিয়ার জায়গা।

তিনি বলেন, আমার জমিটি দখল করার জন্য বাবু মিয়া নানাভাবে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিলেন। এ নিয়ে গত বছর আদালতে মামলাও করি। প্রতিপক্ষকে আদালত থেকে সমন দিলেও তারা সেটি আমলে না নিয়ে জোর করে আমার জায়গা দখলের চেষ্টা অব্যাহত রাখে। এরপর আমি সরাইল থানায় ৫ মাস আগে লিখিত অভিযোগ করি।

দীলিপ নাগ আরও বলেন, আজ (মঙ্গলবার) ভোরে বাবু মিয়া ২৫-৩০ জন লোক নিয়ে মাটি কাটার ভেকু (এক্সেভেটর) দিয়ে আমার দু’টি দোকানঘর গুঁড়িয়ে দেয়। খবর পেয়ে আমি বাড়ি থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করলে বাবু মিয়ার সশস্ত্র লোকজন আমাকে সেখানে আটকে রাখে। 

সংবাদ সম্মেলনে ঐক্য পরিষদের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রদ্যোৎ নাগ, সুভাষ পাল, সুভাষ দাসসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য ইকরামুল আমিন বাবু মিয়ার সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। 

সরাইল থানার ওসি মোহাম্মদ নাজমুল আহমেদ বলেন, মুক্তিযোদ্ধার দোকান ভাঙচুরের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ফোর্স পাঠানো হয়েছে। দিলীপ কুমার নাগকে লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। ওসি আরও বলেন, বাবু মিয়া যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক। তিনি কখন দেশে এসেছেন আমরাও জানি না। এমনকি দিলীপ নাগও জানেন না।

মন্তব্য করুন