অতিথি 'পাখির মাংস' দিয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) পাঁচজন কাউন্সিলর নৈশভোজ করেছেন; যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লাইভ করেছেন এক প্রবাসী। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী রায়হান আহমদের ফেসবুক লাইভটি ভাইরাল হওয়ার পর তা ফেসবুক থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে। তবে তার আগেই বিভিন্ন জন ভিডিও ডাউনলোড করে সংগ্রহে রেখেছেন।

যেকোনো পাখি শিকার, ক্রয়-বিক্রয় দণ্ডনীয় অপরাধ হলেও পাঁচজন জনপ্রতিনিধির এমন কর্মকাণ্ড নিয়ে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে। তবে তারা দাবি করেছেন, পাখির মাংস খাননি।

শুক্রবার রাতে সিলেটের সীমান্তবর্তী জৈন্তাপুর উপজেলার হরিপুর বাজারের একটি হোটেলে সিসিকের প্যানেল মেয়র ও নগরীর ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ তৌফিক বকস, ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইলিয়াছুর রহমান, ১০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তারেক উদ্দিন তাজ, ১১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রকিবুল ইসলাম ঝলক ও ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুল মুহিত জাবেদের সঙ্গে ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপু এবং ফেসবুকে ভিডিও আপলোডকারী যুক্তরাজ্য প্রবাসী রায়হান আহমদ নৈশভোজে অংশ নেন।

প্রবাসী রায়হান আহমদের আইডিতে শুক্রবার রাত ১১টা ১০ মিনিটে আপলোড করা দুই মিনিট নয় সেকেন্ডের লাইভ ভিডিওতে দেখা যায়, তারা সবাই ডাহুক পাখির মাংস দিয়ে রাতের খাবার খাচ্ছেন। তবে কাউন্সিলররা দাবি করেছেন, তারা হাসের মাংস, মুরগির মাংস ও মাছ দিয়ে নৈশভোজ করেছেন। কাউন্সিলর তারেক জানান, তারা হরিপুরের পুরান ড্রাইভার রেস্টুরেন্টে রাতের খাবার খেয়েছেন। সেখানে পাখি বিক্রি করতে দেখলেও তারা পাখির মাংস খাননি।

শনিবার দুপুরের পর যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী রায়হান আহমদের ফেসবুক ওয়াল থেকে ভিডিওটি সরিয়ে দেওয়া হয়। তিনিসহ অন্য কাউন্সিলরদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তাদের মন্তব্য পাওয়া যায়নি।