স্কুলছাত্রীকে মারধরসহ যৌন নিপীড়নের মামলায় এক দিনেই আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর থানা পুলিশ। রোববার জেলার অতিরিক্ত জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আনোয়ার ছাদাত অভিযোগপত্রটি আমলে নেন। কোনো যৌন নিপীড়নের মামলায় এক দিনে অভিযোগপত্র দাখিল জেলায় এটিই প্রথম।

মামলার এজাহারে জানা গেছে, বিজয়নগর উপজেলার ইছাপুরা ইউনিয়নের খাদুরাইল গ্রামের বখাটে মাসুক মিয়া দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করত। সম্প্রতি ওই ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দেয় মাসুক। এতে সাড়া না দিয়ে বিষয়টি স্কুলছাত্রী তার পরিবারকে জানায়। পরে মেয়েটির বাবা মাসুককে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকতে বলেন এবং ঘটনাটি স্থানীয় মাতবরদের অবহিত করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয় মাসুক।

৯ ডিসেম্বর সকালে প্রাইভেট পড়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হলে চান্দুরা-আখাউড়া সড়কের ফুলতলী মোড়ে ওই ছাত্রীকে শ্নীলতাহানির চেষ্টাসহ চড়-থাপ্পড় দেয় মাসুক। এ সময় ওই ছাত্রী ও তার সহপাঠীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে মাসুককে আটক করে পুলিশে দেয়।

এ ঘটনায় ওই দিন দুপুরেই স্কুলছাত্রীর বাবা মাসুকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বিজয়নগর থানায় মামলা করেন। মামলাটি নথিভুক্ত হওয়ার পরপরই তদন্তকাজ শুরু করেন তদন্ত কর্মকর্তা বিজয়নগর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মিজানুর রহমান। তদন্ত শেষে মামলার পরদিন ১০ ডিসেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন তিনি। আদালত রোববার অভিযোগটি আমলে নেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান বলেন, পুলিশ মামলাজট নিরসনে কাজ শুরু করেছে। হাতে মামলা কম থাকলে অপরাধ কমাতে ও প্রতিরোধ করতে পুলিশ মনোযোগী হতে পারবে।


বিষয় : ব্রাহ্মণবাড়িয়া

মন্তব্য করুন