ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলের শাহবাজপুরে দোকানঘর ভেঙে দিয়ে উল্টো বীর মুক্তিযোদ্ধা দিলীপ নাগ ও তার কলেজ পড়ুয়া মেয়ের বিরুদ্ধে আদালতে দ্রুত বিচার আইনে মামলা করেছেন প্রতিপক্ষ ইকরামুল আমিন। ঘটনার ১৩ দিন পর গত ২০ ডিসেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে তিনি এ মামলা করেন।

ইকরামুল আমিন একাত্তরে স্বাধীনতাবিরোধী জিয়াউল আমিন ওরফে নান্না মিয়ার ছেলে। দিলীপ নাগ মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক প্রয়াত রবীন্দ্র মোহন নাগের ছেলে। তিনি হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সভাপতি।

গত ৮ ডিসেম্বর ভোরে দিলীপ নাগের নিজের জায়গায় নির্মিত দুটি দোকানঘর এসকেভেটর দিয়ে গুঁড়িয়ে দেন ইকরামুল আমিন ও তার লোকজন। এ ঘটনায় দিলীপ নাগ সেদিন রাতে সরাইল থানায় ইকরামুল আমিনসহ ১০ জনকে আসামি করে মামলা করেন। ওই মামলার এজাহারে ত্রুটি থাকায় গত ১৩ ডিসেম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে আরও একটি মামলা করেন তার মেয়ে দেবপ্রিয়া নাগ।

প্রতিপক্ষ ইকরামুল আমিন ঘটনাটিকে ধামাচাপা দিতে দিলীপ নাগ ও তার মেয়েরসহ ৬ জনের নামে গত ২০ ডিসেম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাল্টা মামলা করেন। মামলায় ইকরামুল আমিন উল্লেখ করেন, আসামিরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তার বাড়ির গেইট ভেঙে দিয়ে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে।

এদিকে সরেজমিনে বাদীর অভিযোগের কোনো সত্যতা পাওযা যায়নি। ঘটনাস্থলে গেইটের কোনো অস্তিত্বই নেই। স্থানীয় বাসিন্দা ব্যবসায়ী মামুন মিয়া বলেন, এখানে কোনো গেইট ছিল না। আর ভেঙে ফেলা দোকান ঘরগুলো দিলীপ নাগ প্রায় দুই মাস আগে তুলেছিলেন।

শাহবাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাজিব আহমেদ বলেন, জায়গাটি নিয়ে আদালতে মামলা চলছে। কার জায়গা তা আদালতই সিদ্ধান্ত দেবেন। তবে এখানে কোনো গেইট ছিল না।