ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বৃদ্ধাকে হত্যার পর দাফনে অংশ নেয় নাতি

বৃদ্ধাকে হত্যার পর দাফনে অংশ নেয় নাতি

গ্রেপ্তার নাতি সাগর। ছবি: সমকাল

কুমিল্লা প্রতিনিধি

প্রকাশ: ১৮ অক্টোবর ২০২৩ | ১৪:৫৯ | আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০২৩ | ১৪:৫৯

কুমিল্লার মুরাদনগরে আমেনা খাতুন নামে বৃদ্ধাকে চুরি করতে গিয়ে হত্যা করে তাঁরই নাতি সাগর ওরফে বাদশা। হত্যাকাণ্ডের সাত দিনের মাথায় রহস্য বের করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

বুধবার মুরাদনগর উপজেলার মোচাগাড়া গ্রাম থেকে সাগরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। খুনের অভিযোগ স্বীকার করেছে সে। সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান পিবিআই সুপার মিজানুর রহমান।

পিবিআই জানায়, গত ১১ অক্টোবর রাতে আমেনা খাতুনকে (৮২) মাথা ও গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুন করা হয়। তিনি মুরাদনগর উপজেলার মোচাগাড়া গ্রামের মৃত তালেব আলীর স্ত্রী। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে আবু ইউসুফ থানায় অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করেন। পরে পুলিশের পাশাপাশি পিবিআই ছায়া তদন্ত শুরু করে। 

তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই পরিদর্শক হিলাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, চার-পাঁচ বছর আগে সাগর তাঁর দাদির ঘর থেকে স্বর্ণের গহনা ও টাকা চুরি করে। তখন গ্রাম্য সালিশে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও জুতার মালা গলায় দিয়ে গ্রামে ঘোরানো হয়। এতে অপমানিত হয়ে চট্টগ্রাম চলে যায় সাগর। দুই মাস আগে সে তার জেঠা আবু ইউসুফকে ম্যানেজ করে গ্রামে আসে। পিবিআইর অনুসন্ধানে ও এলাকাবাসীর তথ্যে সাগরের নাম উঠে আসে। গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে সাগর জানায়, রাতে দাদির ঘরে লাইট জালানো ছিল, চালের ড্রাম থেকে টাকা বের করার সময় টের পেয়ে দাদি চিৎকার দিলে দা দিয়ে কুপিয়ে তাঁকে হত্যা করে। এ সময় ৫ হাজার টাকা ও দুটি তেলের বোতল নিয়ে সে পালিয়ে যায়।

পিবিআই সুপার মিজানুর রহমান জানান, নাতি তার দাদিকে হত্যার পর স্বাভাবিক ছিল, লাশ দেখতে অন্যদের সঙ্গে সেও ঘরে যায় এবং দাফন-কাফনেও অংশ নেয়। তার স্বীকারোক্তি অনুসারে গ্রামের বাড়ির পুকুর থেকে একটি দা, একটি ছোরা ও একটি স্টিলের রড উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (আজ) ১৬৪ ধারায় জবানবন্দির জন্য তাকে কুমিল্লার আদালতে হাজির করা হবে।



আরও পড়ুন

×