ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

ফারুক হত্যায় সাবেক মেয়র মুক্তির জামিন

ফারুক হত্যায় সাবেক মেয়র মুক্তির জামিন

সহিদুর রহমান খান মুক্তি। ছবি-সংগৃহীত

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

প্রকাশ: ২২ নভেম্বর ২০২৩ | ২১:১৫

টাঙ্গাইল পৌরসভার সাবেক মেয়র সহিদুর রহমান খান মুক্তি জামিন পেয়েছেন। আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় শর্তসাপেক্ষে তাঁকে জামিন দিয়েছেন উচ্চ আদালত। বুধবার দুপুরে টাঙ্গাইল কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে অসুস্থতার কারণে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তিনি।  

টাঙ্গাইলের জেল সুপার মোখলেসুর রহমান জানান, উচ্চ আদালতের জামিনপত্র বুধবার টাঙ্গাইল কারাগারে পৌঁছালে আসামি সহিদুর রহমান খানকে মুক্তি দেওয়া হয়।

সাবেক মেয়র মুক্তির আইনজীবী ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আব্দুল মুনতাকিম জানান, সহিদুর রহমান খান মুক্তির ছয় মাসের অন্তবর্তীকালীন জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের তত্বাবধায়ক সাদেকুর রহমান বলেন, সহিদুর রহমান খান প্রোস্টেট, থাইরয়েড, ব্যাকপেইন ও শ্বাসকষ্টজনিত রোগ নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। হাসপাতালের তৃতীয় তলার ৫নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছেন তিনি। 

২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফারুক আহমদের গুলিবিদ্ধ লাশ তার কলেজপাড়ার বাসার কাছ থেকে উদ্ধার হয়। তিন দিন পর তার স্ত্রী নাহার আহমদ বাদী হয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে হত্যা মামলা করেন। এই হত্যায় জড়িত সন্দেহে ২০১৪ সালের আগস্টে গোয়েন্দা পুলিশ আনিসুল ইসলাম রাজা ও মোহাম্মদ আলী নামে দু’জনকে গ্রেপ্তার করে। আদালতে তাদের দেওয়া স্বীকারোক্তিতে হত্যার সঙ্গে তৎকালীন সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানা, তার তিন ভাই তৎকালীন পৌর মেয়র সহিদুর রহমান খান মুক্তি, ব্যবসায়ী নেতা জাহিদুর রহমান খান কাকন ও ছাত্রলীগের তৎকালীন কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি সানিয়াত খান বাপ্পার জড়িত থাকার বিষয়টি উঠে আসে। এরপর অভিযুক্তরা আত্মগোপনে চলে যান।

সাবেক সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানা ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে আত্মসমর্পণ করেন। প্রায় তিন বছর হাজতবাসের পর জামিনে মুক্তি পান তিনি। সহিদুর রহমান খান মুক্তি দীর্ঘ ছয় বছর পলাতক থাকার পর ২০২০ সালের ২ ডিসেম্বর আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান। তাদের অন্য দুই ভাই এখনও আত্মগোপনে। মুক্তির বাবা আতাউর রহমান খান টাঙ্গাইল-৩ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য।

আরও পড়ুন

×