ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

হানিফের আসনে নতুন মেরূকরণ

কুষ্টিয়া-৩

হানিফের আসনে নতুন মেরূকরণ

মাহবুবউল-আলম হানিফ ও পারভেজ আনোয়ার তনু

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

প্রকাশ: ২৯ নভেম্বর ২০২৩ | ০৫:৪৮

কুষ্টিয়া-৩ (সদর) আসনে এবারও আওয়ামী লীগের প্রার্থী দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল-আলম হানিফ। গত দুটি সংসদ নির্বাচনে তাঁর শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকলেও এবার পরিস্থিতি ভিন্ন। এখানে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলীর ছেলে পারভেজ আনোয়ার তনু। স্থানীয়রা বলছেন, কুষ্টিয়া সদরের রাজনীতিতে এটি নতুন মেরূকরণ, যা শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস দিচ্ছে।

২০১৮ সালের সংসদ নির্বাচনে এই আসনে বিএনপির প্রার্থী ছিলেন জাকির হোসেন সরকার। তবে তিনি মাঠে নামতে পারেননি। হামলা-মামলার কারণে তাঁকে ঘরে বসে থাকতে হয়েছে। তাঁর আগে ২০১৪ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ ছিলেন বিএনএফ প্রার্থী রকিব উর রহমান খান। তাদের তুলনায় পারভেজ আনোয়ার তনুকে এবার শক্ত প্রার্থী মনে করছেন অনেকে। তাঁর বাবা আনোয়ার আলী কুষ্টিয়া পৌরসভার পাঁচবারের নির্বাচিত মেয়র। এই আসনে ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালের সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেও অল্প ভোটে পরাজিত হন তিনি। জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার আলীর এলাকায় রয়েছে নিজস্ব ভোটব্যাংক। 

অন্যদিকে, টানা দু’বারের সংসদ সদস্য মাহবুবউল-আলম হানিফ কুষ্টিয়া পৌর এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন, যা অন্য কারও সময়ে হয়নি। তবে দলের নেতাকর্মীর অভিযোগ, হানিফের আমলে সব কিছু নিয়ন্ত্রণ করেন তাঁর চাচাতো ভাই সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। তিনি দলের ত্যাগী নেতাকর্মীকে কোণঠাসা করে বিএনপি-জামায়াত ও হাইব্রিড নেতাদের কাছে টেনে নেন। কিন্তু হানিফ দলের প্রভাবশালী নেতা হওয়ায় তাঁর সম্পর্কে প্রকাশ্যে কেউ কথা বলেন না। ভোটের লড়াইয়ে এর প্রভাব পড়তে পারে বলে মনে করছেন কেউ কেউ।

পারভেজ আনোয়ার তনু এরই মধ্যে স্থানীয় নির্বাচন অফিস থেকে মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন। সমকালকে তিনি বলেন, ‘আমার বাবা বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে রাজনীতি করেছেন। তিনি দীর্ঘদিন পৌর মেয়র। সদর আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করব। পুরোদমে প্রস্তুতি নিচ্ছি। জনগণ আমাকে ভোট দেবে বলে আশা করছি।’ তিনি বলেন, ‘সদরে অনেক উন্নয়ন হয়েছে, আরও উন্নয়ন করার সুযোগ আছে। সেই সুযোগ কাজে লাগাতে চাই। শেষ পর্যন্ত নির্বাচনের মাঠে থাকব।’

আনোয়ার আলী গত দুটি সংসদ নির্বাচনে হানিফের পক্ষে কাজ করেন। এবার তাঁর ছেলে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দেওয়ায় সেই চিত্র বদলে গেছে।

মেয়রপুত্র তনুর স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার সিদ্ধান্তে দলের হানিফ অনুসারী নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ। তনু মনোনয়ন ফরম জমা দিলেও শেষ পর্যন্ত প্রত্যাহার করে নেবেন বলে মনে করছেন তারা। জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাসানুল আসকার হাসু বলেন, ‘সদরে হানিফ ভাইয়ের বিকল্প নেই, তাঁর নেতৃত্বে দল ঐক্যবদ্ধ। তিনি যে উন্নয়ন করেছেন, সে জন্য দলমত নির্বিশেষে তাঁকে সমর্থন দিয়ে আসছে। এবারও তিনি বিপুল ভোটে জয়ী হবেন।’ 

আরও পড়ুন

×