বান্দরবানের লামাতে এক প্রান্তিক কৃষকের এক একর ২৫ শতক জমিতে রোপন করা তামাক, বাদাম, আলু ও শিম গাছ উপড়ে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার রাতে উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের পূর্ব শীলেরতুয়া নয়া পাড়ার এ ঘটনায় কৃষক হযরত আলীর প্রায় ৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

অভিযোগ, স্থানীয় মমতাজ হোসেনের নেতৃত্বে ১০-১২ জন এ ঘটনা ঘটিয়েছেন। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জানা গেছে,  হাজী নুরুল কবিরের কাছ থেকে ২০১৯ সালের ১ জানুয়ারি ৪ লাখ টাকায় এক একর ২৫ শতক জমি বন্ধক নিয়ে চলতি মৌসুমে তামাক, আলু, বাদাম ও শিম চাষ করেন কৃষক হযরত আলী। জমি বন্ধক নিয়ে জমির মালিক হাজী নুরুল কবির ও তার ছেলে মমতাজ হোসেনের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। জমি নিয়ে বিরোধের ঘটনা মিমাংসার জন্য রোববার সামাজিকভাবে বৈঠক বসার সিদ্ধান্ত হয়।

তবে মমতাজ হোসেন বৈঠকের আগেই শনিবার গভীর রাতে লোকজন নিয়ে কৃষক হযরত আলীর রোপিত তামাক, বাদাম, আলু ও শিম গাছ উপড়ে ফেলেন বলে অভিযোগ। 

রোববার দুপুরে সরেজমিনে গেলে দেখা যায়, পুরো জমিতে রোপিত বাদাম, তামাক, আলু ও শিম গাছের মধ্যে বেশির ভাগই উপড়ে ফেলে রেখেছে প্রতিপক্ষ।

এ সময় নুরুল কবিরের ছেলে নুরুন্নবী, স্থানীয় জমির হোসেন ও আলমগীর জানান, জমি নিয়ে বিরোধের জেরে শনিবার ১০-১২ জন নিয়ে হযরত আলীর গাছগুলো উপড়ে ফেলেন মমতাজ হোসেন।

কৃষক হযরত আলী ও তার স্ত্রী কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, মমতাজ হোসেন ও তার লোকজন গত কয়েকদিন ধরে আমাদেরকে এ্ জমিতে চাষ না করার জন্য বলেন। এমনকি নিষেধ অমান্য করে জমিতে চাষ করলে মারধরসহ অপূরণীয় ক্ষতি করা হবে বলেও হুমকি দেন।এরই ধারাবাহিকতায় লোকজন নিয়ে আমাদের গাছগুলো উপড়ে ফেলে ৫ লাখ টাকার ক্ষতি করেন মমতাজ হোসেন।

অভিযোগ অস্বীকার করে মমতাজ হোসেন বলেন, হযরত আলীর রোপিত তামাক, বাদাম, আলু ও শিম গাছ উপড়ে ফেলার ঘটনায় কোনভাবেই জড়িত নই। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আবু তাহের বলেন, অভিযুক্তরা পরস্পর আত্মীয়। তাই বিষয়টি বৈঠকের মাধ্যমে সমাধানের জন্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বৈঠকের আগেই এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনা কোনভাবেই কাম্য নয়।

এ বিষয়ে লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানায়, তামাক বাদাম আলু ও শীম গাছ উপড়ে ফেলার বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।