পূর্বশত্রুতার জের ধরে ঝালকাঠির নলছিটিতে আনিস বিশ্বাস রুম্মান (১৯) নামের এক তরুণকে গলা কেটে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষরা। রোববার রাতে উপজেলার দপদপিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত রুম্মান শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত সেতুর টোল প্লাজার ক্যাশিয়ার ছিলেন। তিনি দপদপিয়া গ্রামের সত্তার বিশ্বাসের ছেলে।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, প্রতিবেশী আল মামুন ও রানা হাওলাদারদের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ ছিল রুম্মানের পরিবারের। রোববার রুম্মানের চাচা মুন্না বিশ্বাসের সঙ্গে দপদপিয়া ফেরিঘাট এলাকায় একটি চায়ের দোকানে বসে কথা কাটাকাটি হয় আল মামুনের ভাগ্নে রিয়াদের। বিষয়টি রিয়াদ তার স্বজনদের জানালে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে বিকেল থেকে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে মুন্নাদের বাড়ির পাশে অবস্থায় নেয়। মুন্নার ভাতিজা রুম্মান রাতে বাড়ির সামনে বের হলে তাকে ঘিরে ফেলে আল মামুন, রিয়াদ, বাপ্পি হাওলাদারসহ ১০-১২ জন যুবক। এরপর বেধড়ক মারধরের এক পর্যায়ে তাকে গলা কেটে পালিয়ে যায় তারা। স্থানীয়রা রুম্মানকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

রুম্মানের চাচাতো ভাই আজিজ বিশ্বাস বলেন, রাতে আল মামুনের বাহিনী রুম্মানকে টেনেহিঁচড়ে বাড়ির সামনের রাস্তায় নিয়ে যায়। বাপ্পি নামের একটি ছেলে আমাদের চোখের সামনেই রুম্মানের গলায় দা দিয়ে কোপ দেয়। এ সময় আমাদের চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এসে রুম্মানকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়। 

নলছিটি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাখাওয়াত হোসেন বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে মৃতের সুরতহাল রিপোর্ট করেছে। তার গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি এবং ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।