নববর্ষ উপলক্ষে রাজশাহী মহানগরীতে বিষাক্ত মদপান করে পাঁচ যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় পুলিশ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে। রোববার রাতে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তাররা হলেন- নগরীর বোয়ালিয়া থানার সাগরপাড়া এলাকার পবিত্র সিংয়ের ছেলে পরিমল সিং (৬০), হাসেম আলীর ছেলে সাজু (৩০), পরিতোষ সিংয়ের ছেলে বাপ্পা সিং (২৮) ও রাজপাড়া থানার সিপাইপাড়া এলাকার আব্দুর রউফ মতিনের ছেলে ইফতেখার হোসেন সুমন (৫০)।

সোমবার নগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত সহকারি কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান, বিদেশী মদের সঙ্গে রেক্টিফাইড স্পিরিট, রঙ ও অন্যান্য উপকরণ মিশিয়ে নকল মদ করে বিক্রি করছিলো ওরা। গত ৩১ ডিসেম্বর রাতে এই নকল মদ খেয়ে ৫ জন মারা যান। এ ঘটনায় বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশের একটি চৌকস টিম মৃত ব্যক্তিদের আত্মীয়-স্বজন এবং চিকিৎসাধীন ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করে তথ্য সংগ্রহ করে। পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে এ অভিযান পরিচালনা করে। আটকদের কাছ থেকে মদের খালি বোতল, এক বোতল টিউনিং মদ (মিশ্রিত মদ) তৈরির তরল পদার্থ, এক বোতল তেতুলের বিচি, ৫০ গ্রাম গুড়ো রং, ২৯টি টিন ও প্লাস্টিকের তৈরি কর্ক, ১১টি কর্কের নিব ও ৫০টি কর্কের প্রটেকশন ও দুই বোতল অ্যালকোহল উদ্ধার করা হয়।

গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, উদ্ধার আলামতগুলোর রাসায়নিক পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। গ্রেপ্তাররা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন, তারা অতিরিক্ত লাভের আশায় বিদেশী মদের সঙ্গে রেক্টিফাইড স্পিরিটসহ অন্যান্য উপকরণ মিশিয়ে মিশ্রিত মদ তৈরী করেন। যা তারা ককটেল নামে বিক্রি করতেন। মিশ্রিত এই বিষাক্ত মদ তারা মৃত ও অসুস্থ ব্যক্তিদের কাছে বিক্রি করেছিলেন। অসুস্থ ব্যক্তিরা এই মদ বিক্রিতাদের শনাক্ত করেছেন। এ ঘটনায় বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।