নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় একটি অগ্নিনির্বাপক সামগ্রী তৈরি ও গ্যাস সিলিন্ডার রিফিলিংয়ের দোকানে সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে ওই দোকানের এক কর্মচারী নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ কার্যালয়ের পাশে ড্রিম হাউজ নামে সাত তলা ভবনের নিচ তলায় অবস্থিত সেফটি ফার্স্ট ফায়ার প্রোটেকশন নামের দোকানটিতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

নিহত রফিকুল ইসলাম নোয়াখালীর লক্ষীপুর এলাকার মমিন উল্লাহর ছেলে। দোকানের মালিক রিয়াজ ঘটনার পর থেকে আত্মগোপনে আছেন। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জেলা পরিষদের বিপরীত পাশে অবস্থিত ড্রিম হাউজ নামে সাত তলা ভবনের নিচ তলার ওই দোকানে অগ্নিনির্বাপন যন্ত্র তৈরিসহ, সিএনজিচালিত থ্রি হুইলার ও মোটর গাড়ির গ্যাস সিলিন্ডারের রিফিলিংয়ের কাজ করা হতো। রফিকুল ইসলাম এই কাজগুলো করতেন বলে জানা গেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে কাজ করার সময় গ্যাসের একটি সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান রফিকুল। তার মাথা ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তর জন্য নারাযণগঞ্জ দেড়শ' শয্যা জেনারেল হাসপাতার মর্গে প্রেরণ করা হয়।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন বলেন, ধারণা করা হচ্ছে রফিকুল অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রে কার্বন-ডাই অক্সাইড গ্যাস ভরার সময় বিস্ফোরণের ঘটনাটি ঘটেছে। 

এ বিষয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা তদন্ত করছে। পুলিশও তদন্ত করে দেখছে অগ্নিনির্বাপক বিক্রয় কেন্দ্রের বৈধতা আছে কিনা।