চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির মাইজভান্ডার এলাকায় দারুচ্ছালাম ঈদগাহ মাদ্রাসায় সশস্ত্র হামলার ঘটনার প্রধান আসামি স্থানীয় সেই আওয়ামী লীগ নেতা পাঠান হাসানকে (৩৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তিনি মাইজভান্ডার নানুপুর এলাকার মৃত নুরুচ্ছফার ছেলে।

পুলিশ জানায়,  গত ৪ জানুয়ারি মাদ্রাসায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুরের সময় স্থানীয়দের বাধার সম্মুখীন হলে আওয়ামী লীগ নেতা পাঠান হাসান তার শর্টগান থেকে এলোপাতাড়ি গুলি করলে ৫ জন আহত হন। স্থানীয়রা তাদের প্রথমে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। এ ঘটনায় ওইদিন রাতেই মাদ্রাসার পরিচালক মুফতি মনির পাঠান হাসানকে প্রধান আসামি করে ১০ জনের নাম উল্লেখসহ আরো ১০/১২ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে ফটিকছড়ি থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর থেকে পুলিশ অভিযান শুরু করে। 

পুলিশ আরও জানায়, পরে বুধবার রাত ৯টার সময় চট্টগ্রাম চাঁন্দগাও থানাধীন শোলকবহর এলাকা থেকে র‌্যাব-৭ এর টহল টিমের সাহায্যে ফটিকছড়ি থানা পুলিশের একটি টিম পাঠান হাসানকে (৩৮) আটক করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফটিকছড়ি থানার এসআই দেলোয়ার হোসেন, মাদ্রাসায় হামলার ঘটনার প্রধান আসামিকে র‌্যাব-৭ এর সহযোগিতায় আমরা আটক করতে সক্ষম হয়েছি। দ্রুত এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে।