ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে ট্রেন লাইনের পাশ থেকে উদ্ধার করা অজ্ঞাত শিশুটির (১১) জ্ঞান ফেরেনি সাতদিনেও। বর্তমানে শিশুটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালের সার্জারি কনসালটেন্ট ডা. এ. কে. এম নিজাম উদ্দিন বলেন, শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। আমরা যথাসম্ভব চিকিৎসা দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়ে শিশুটি অচেতন রয়েছে। তার আরও উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন যা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সম্ভব নয়।

আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদ মাহমুদ বলেন, গত ৩ জানুয়ারি স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে খবর পেয়ে রেললাইনের পাশ থেকে আহত ও অচেতন অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় পুলিশ। ধারনা করা হচ্ছে, ট্রেন থেকে পড়ে শিশুটি আহত হয়েছে। আমরা তার পরিবারকে শনাক্ত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তবে এখন পর্যন্ত তা সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে আশুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুপুর সাহা বলেন, শিশুটির মাথার আঘাত গুরুতর হওয়ায় একই দিন তাকে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 গত ৩ জানুয়ারি দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেট রেলপথের আশুগঞ্জ উপজেলার বৈকণ্ঠপুর এলাকার রেললাইনের পাশ থেকে অজ্ঞাত পরিচয় ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে পুলিশ শিশুটির মাথার আঘাত গুরুতর হওয়ায় একই দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তৃপক্ষ তাকে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠায়।