চট্টগ্রাম নগরীর খুলশীতে এক ব্যাংক কর্মকর্তার চোখ নষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে। বাসায় ঢুকে তাকে মারধর করার এক পর্যায়ে বাম চোখের কর্নিয়া স্থানচ্যুত হয়ে নষ্ট হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন আলী আরশাদ নামে ওই ব্যাংক কর্মকর্তা। 

এ ঘটনায় মারধর ও হত্যাচেষ্টা মামলায় রাঈদ আহম্মেদ কোরাইশী নামে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করলেও অপর আসামি জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য ও চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক সোলায়মান আলম শেঠের ছেলে ওজাইর শেঠকে পুলিশ গ্রেপ্তার করছে না বলে অভিযোগ করেছে বাদীপক্ষ। 

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের এস রহমান হলে সংবাদ সম্মেলনে বাদীর ভাই আলী ইমাম এ অভিযোগ করেন।

আলী ইমাম জানান, পূর্বপরিচয় সূত্রে হত্যাচেষ্টা মামলার প্রধান আসামি কোরাইশীকে ১৪ লাখ টাকা ধার দেন মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক আগ্রাবাদ শাখার প্রিভিলাইজড হেড আলী আরশাদ ও তার বন্ধু মুনতাসির মামুন। পরে পাওনা টাকা চাইতে গেলে টাকা না দিয়ে বিভিন্ন অজুহাত দেখান কোরাইশী। গত ৭ জানুয়ারি রাতে অভিযুক্ত কোরাইশী, ওজাইরসহ চারজন লাঠিসোটা নিয়ে ওই ব্যাংকারের বাসায় ঢুকে তাকে মারধর করেন। এ সময় আরশাদ বাম চোখে মারাত্মক আঘাত পান। বর্তমানে তিনি পাহাড়তলী চক্ষু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় চারজনকে অভিযুক্ত করে খুলশী থানায় মামলা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত ওজাইর শেঠকে ফোন করা হলে তিনি ধরেননি। তার বাবা সোলায়মান আলম জানান, আলী আরশাদের সঙ্গে ওজাইর ও অপর অভিযুক্তের অর্থনৈতিক লেনদেন ছিল। সে বিষয়ে তার বাসায় গিয়ে কথা বলার এক পর্যায়ে বাগ্‌বিতণ্ডা হয় এবং হাতাহাতির সময় পাশে থাকা আলমারির সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে চোখে আঘাত পান আরশাদ। তবে তিনি একজন অবৈধ ব্যবসায়ী। তার বাসায় অনেক অনৈতিক কর্মকাণ্ড হয়।