সিলেট সেনানিবাসের সিলেট ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে মাঘের শীত উপেক্ষা করে শত শত মানুষের লাইন। করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে আশপাশের গ্রামের নারী-পুরুষ আলাদা লাইনে দাঁড়িয়েছেন; আছে শিশুরাও। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১৭ পদাতিক ডিভিশন ও সিলেট এরিয়ার উদ্যোগে এবং ৯১ ফিল্ড অ্যাম্বুলেন্সের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা নিতে সাধারণ মানুষের দীর্ঘ এ লাইন। 

সোমবার দিনব্যাপী এ ক্যাম্পে দেড় হাজার নারী, পুরুষ ও শিশুকে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সেনাবাহিনীর ১৭ পদাতিক ডিভিশন ও সিলেট এরিয়ার উদ্যোগে চিকিৎসাসেবার পাশাপাশি বিনামূল্যে ওষুধও বিতরণ করা হয়। এছাড়া অসহায় ও হতদরিদ্রদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। ১৭ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মুহাম্মদ যুবায়ের সালেহীনের নির্দেশে এ কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। 

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রতি বছরের মতো এবারও শীতকালীন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চালাচ্ছে। সেনাবাহিনীর ১৭ পদাতিক ডিভিশন ও সিলেট এরিয়ার সব সেনা সদস্য স্বতঃস্ফূর্ততার সঙ্গে শীতকালীন এ প্রশিক্ষণে অংশ নিয়েছে। প্রশিক্ষণ চলাকালে ৯১ ফিল্ড অ্যাম্বুলেন্সের সার্বিক তত্ত্বাবধানে মেডিসিন, শল্য, নাক-কান-গলা, চক্ষু, স্ত্রী ও ধাত্রী এবং দন্ত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা চিকিৎসা দিয়েছেন। এছাড়া ডেন্টাল মোটিভেশনাল সেশনও অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৫১ ফিল্ড অ্যাম্বুলেন্স, ৭৫ ফিল্ড অ্যাম্বুলেন্স, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল ও মিলিটারি ডেন্টাল সেন্টার, সিলেট দিনব্যাপী এ চিকিৎসাসেবা প্রদানে সার্বিক সহযোগিতা করে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে আগত রোগীদের সেবা দেওয়া হয়। এ সময় জ্বর, ঠান্ডা, কাশি ও শ্বাসকষ্টের রোগীদের জন্য আলাদা স্কিনিংয়ের ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়। এছাড়া আগতদের মাস্ক পরতে উদ্বুদ্ধ করার পাশাপাশি যাদের মাস্ক ছিল না তাদের মধ্যে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরণ করা হয়। 

১৭ পদাতিক ডিভিশনের এডিএমএ কর্নেল মাকছুমুল হাকিমের তত্ত্বাবধানে এবং ৯১ ফিল্ড অ্যাম্বুলেন্সের অধিকায়ক লে. কর্নেল মুহম্মদ খালিদ আইয়ুবের প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর জনকল্যাণমূলক এ কার্যক্রম প্রশংসা অর্জন করেছে। এ সময় সেনাবাহিনীর মেডিকেল কোরের মেজর শাপলা, ক্যাপ্টেন সাদিয়াসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-চিকিৎসকরা উপস্থিত ছিলেন। 

৯১ ফিল্ড অ্যাম্বুলেন্সের অধিকায়ক লে. কর্নেল মুহম্মদ খালিদ আইয়ুব বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে এবং বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বাস্তবায়নে মানুষের অন্যতম মৌলিক চাহিদা চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতে এ কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে।