নওগাঁ পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা মার্কার প্রার্থীর গণজোয়ারে নিশ্চিত পরাজয়ের আশঙ্কায় নির্বাচন বানচালসহ শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট করতেই বিএনপি নানা অপতৎপরতায় লিপ্ত হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী নির্মল কৃষ্ণ সাহা। তিনি বলেন, বিএনপি প্রার্থীর সীমাহীন ব্যর্থতার কারণে জনপ্রিয়তা নেই জেনেই তারা আওয়ামী লীগের প্রার্থীর নেতাকর্মী ও সমর্থকদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা চলছে। 

মঙ্গলবার দুপুরে নওগাঁ শহরের সরিষাহাটির মোড়ে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে দলের মেয়র প্রার্থী নির্মল কৃষ্ণ সাহা সংবাদ সম্মেলন করে এসব অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গত রোববার নওগাঁ জেলা বিএনপির আহবায়ক হাফিজুর রহমান সাংবাদিক সম্মেলনে মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করেছেন। বিএনপির প্রার্থী ও নেতাকর্মীদের ওপর হামলা এবং অফিস ভাঙচুরের যে কথা বলা হচ্ছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্য প্রণোদিত এবং আমার নেতাকর্মী, সমর্থকদের মনোবল দুর্বল করার হীন অপচেষ্টা মাত্র। 

নির্মল কৃষ্ণ সাহা ২০১২ সালের ১২ সেপ্টেম্বরের কথা উল্লেখ করে বলেন, বিএনপির আভ্যন্তরীণ কোন্দলে ওইদিন নিজেদের কার্যালয়ে তৎকালীন জেলা বিএনপির সভাপতি মো. সামসুজ্জোহা খান জোহাকে হত্যার চেষ্টা করে তাকে রক্তাক্ত জখম করা হয়েছে। এসময় তারা নিজেরাই দলীয় নেতাকর্মীদের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে। ঠিক একইভাবে বর্তমানে নির্বাচনী প্রচারনা চলাকালে তারা নিজেরাই নিজেদের অফিস ভাঙচুর করে আওয়ামী লীগের ওপর দোষ চাপানের অপচেষ্টা করছে।

আওয়ামী লীগের দুর্দিনের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা শাহ পরান নয়নকে জড়িয়ে বিএনপির মিথ্যা তথ্য পরিবেশনের অভিযোগ বরে নির্মল কৃষ্ণ সাহা বলেন, গত শনিবার রাতে শহরে নওযোয়ান মাঠের পাশে বিএনপির ওপর হামলার যে অভিযোগ করা হচ্ছে, ঠিক একই সময় শাহ পরান নয়ন আমার সঙ্গে অন্যত্র নির্বাচনী কাজে ব্যস্ত ছিলেন। শাহ পরান নয়নের জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে এমন মিথ্যা বানোয়াট তথ্য প্রচার করা হয়েছে। বিএনপির ওপর হামলার ঘটনার সঙ্গে আওয়ামী লীগের কোন নেতাকর্মীর সংশ্লিষ্টতা নেই।

সংবাদ সম্মেলনে নির্মল কৃষ্ণ সাহা আরও বলেন, মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনার প্রতি শতভাগ আস্থা রেখে প্রচারণা চালিয়ে আসছি। বর্তমান সরকারের অভাবনীয় উন্নয়নে সাড়া দিয়ে ও সাবেক মেয়রের সীমাহীন ব্যর্থতার কারণে পৌরসভায় নৌকা মার্কার প্রতি ব্যাপক গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এমন গণজোয়ারে ভীত সন্ত্রস্ত্র হয়ে পরাজয়ের আশঙ্কা থেকে বিএনপির প্রার্থী ও তার দোসররা ভোটের পরিবেশ নষ্ট করতে অস্থিরতা তৈরি করছে।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিভাস মজুমদার গোপাল, জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহবুবুল হক কমল, সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দীন, জেলা কৃষক লীগের আহ্বায়ক আব্দুল ওয়াহাব, আওয়ামী লীগ নেতা শাহ পরান নয়ন, পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জিয়াউর রহমান বাবলু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, আগামী ৩০ জানুয়ারি নওগাঁ পৌরসভার ভোট অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নির্মল কৃষ্ণ সাহা ছাড়াও বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র নজমুল হক, স্বতন্ত্র প্রার্থী ইকবাল শাহরিয়ার, জাতীয় পার্টির ইফতেখারুল ইসলাম ও বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পৌরসভায় মোট ভোটার ১ লাখ ১৬ হাজার ২৪০ জন।