সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ২০০২ সালে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপন অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার চতুর্থ দিনে উপস্থাপিত যুক্তিতর্ক রেকর্ড করেন সাতক্ষীরার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ুন কবির। 

মামলাটি পরিচালনায় রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এসএম মুনীর, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সুজিত মুখার্জি ও শাহীন মৃধা এবং সাতক্ষীরার পিপি আবদুল লতিফ। অন্যদিকে বিবাদীপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শাহানারা আক্তার বকুল, অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ, অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান পিন্টু ও অ্যাডভোকেট তোজাম্মেল হোসেন।

রাষ্ট্রপক্ষ বলেছে, ২০ সাক্ষীর জবানবন্দিতে এবং পারিপার্শ্বিক বিভিন্ন কারণে আসামিরা দোষী প্রমাণিত হয়েছেন। অন্যদিকে আসামিপক্ষ জানিয়েছে, ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট কলারোয়ায় তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার কোনো ঘটনা ঘটেনি। ওই দিন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মী এবং সাংবাদিকদের মধ্যে মারামারি হয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে আসামিরা দোষী প্রমাণিত হননি। 

উভয়পক্ষই ন্যায়বিচার পাবেন প্রত্যাশা করে এসএম মুনীর ও আবদুল লতিফ বলেন, আসামিরা সর্বোচ্চ সাজা পাবেন। 

অন্যদিকে শাহানারা আক্তার বকুল ও আবদুল মজিদ বলেন, সব আসামি খালাস পাবেন। এর আগে আদালতে ২০ সাক্ষীর জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

বিষয় : শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলা

মন্তব্য করুন