টানা পাঁচ দিন পর রোববার প্রায় শান্ত ছিল বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা। মঙ্গলবার মধ্যরাতে পরিবহন শ্রমিকদের হামলার প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বুধবার থেকে বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ চালিয়ে আসছিলেন। রোববার তারা শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন। অপরদিকে রূপাতলী বাস টার্মিনালের পরিবহন মালিক-শ্রমিকরাও এদিন পাল্টা কর্মসূচিতে যাননি। ফলে এ দিন বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়কে যান চলাচল নির্বিঘ্ন ছিল।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে নেতৃত্বদানকারীদের অন্যতম অমিত হাসান রক্তিম জানান, হামলায় নেতৃত্ব দেওয়া পরিবহন মালিক-শ্রমিক নেতাদের নাম মামলায় অন্তর্ভুক্ত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। প্রশাসনের আশ্বাস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রোববার তারা মহাসড়ক অবরোধ কর্মসূচি স্থগিত রাখেন। তবে আন্দোলনকারীরা মুখে কালো কাপড় বেঁধে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং বিকেল ৫টা পর্যন্ত ক্যাম্পাসে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন।

অপরদিকে, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রোববার পরিবহন ধর্মঘট স্থগিত রাখার কথা জানান বরিশাল পটুয়াখালী মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাওছার হোসেন শিপন। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার অভিযোগে দায়ের মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া দুই শ্রমিক মুক্তি না পাওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। মালিক-শ্রমিকরা সভা করে পরবর্তী সময় কর্মসূচি ঘোষণা করবেন।