রাজবাড়ীর কালুখালীতে নাজমা বেগম নামের মধ্যবয়সী এক নারীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার সকালে উপজেলার মাজবাড়ি ইউনিয়নের কোমরপুর গ্রামের কাশমিয়া বিলপাড় থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেছে কালুখালী থানার পুলিশ। নিহত নাজমা বেগম একই ইউনিয়নের কুষ্টিয়াডাঙ্গী গ্রামের মানিক শেখের মেয়ে। তিনি ঢাকার একটি গার্মেন্টে শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন।

নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, নাজমার দুইবার বিয়ে হয়েছিল। তার এক স্বামীর নাম বিল্লাল শেখ। আরেকজনের নাম মোহম্মদ মকিম। তবে কারো সঙ্গেই তিনি থাকতেন না। গার্মেন্টে চাকরির সুবাদে তিনি ঢাকায় থাকতেন। ১০ দিন আগে তিনি কুষ্টিয়াডাঙ্গী গ্রামে বাবার বাড়িতে আসেন।

নিহতের ছেলে রনজু শেখ জানান, গত শনিবার তার মা পাংশার বাগদুলি গ্রামে খালা বাড়ি যান। রোববার থেকে তার মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়। সোমবার সকালে কাশমিয়া বিলপাড়ে তার মায়ের মরদেহ পড়ে আছে বলে জানতে পারেন।

কালুখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান জানান, এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তার গলায় ধারালো অস্ত্রের কোপের আঘাত রয়েছে। এ থেকে ধারণা করা হচ্ছে, তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

পুলিশের ওই কর্মকর্তা আরো জানান, কে বা কারা ওই নারীকে হত্যা করেছে তা এখনও জানা যায়নি। তবে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তাকে খুন করা হতে পারে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে। হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।