সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে স্বামীকে জুয়া খেলায় বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে এবং শ্বাসরোধ করে হত্যার পর তার লাশ আমগাছে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার দুপুরে উপজেলার নরিনা ইউনিয়নে বাতিয়া পূর্বপাড়া গ্রাম থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

নিহত নারীর নাম আয়শা খাতুন (৩০)। তার স্বামীর নাম গোলাম মোস্তফা। ঘটনার পর থেকে গা ঢাকা দিয়েছেন তিনি।

নিহত আয়শা খাতুনের দুই বোন জানান, তাদের বাড়ি উপজেলার চুলধরী গ্রামে। প্রায় একদশক আগে নরিনা ইউনিয়নের বাতিয়া পূর্ব পাড়া গ্রামের শাহজাহানের ছেলে মোস্তফার সঙ্গে তাদের বোন আয়শার বিয়ে হয়। বিয়ের পর বোনের সংসারে কোনো ঝামেলা ছিল না। তবে সম্প্রতি মোস্তফা অনলাইনে জুয়া খেলায় আসক্ত হন। এর জেরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিবাদ দেখা দেয়। জুয়া খেলায় বাধা দেন আয়শা। এতে মোস্তফা ক্ষুদ্ধ হন। এর জন্য রাতে আয়শাকে মারধর করে শ্বাসরোধে হত্যার পর তার লাশ বাড়ির পেছনে একটি আমগাছে ঝুলিয়ে রাখেন।

মোস্তফা পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের বিষয়ে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে মোস্তফার স্বজনরা বলেন, তারা ঘটনার বিষয়ে কিছু জানেন না।

শাহজাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিদ মাহমুদ খান বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে এটা হত্যা নাকি আত্মহত্যা। তারপর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।