নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জে শিমরাইলে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক থেকে পুলিশ ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক আটক করায় নিজের পেটে ছুরি ঢুকিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছেন চালক জুম্মন (৩০)। সোমবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের কাঁচপুর সেতুর পশ্চিম পাশে শিমরইলের নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশের ডাম্পিং স্টেশন এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। 

বিষযটি স্থানীয়রা দেখে কতর্ব্যরত ট্রাফিক পুলিশকে জানালে তারা এবং সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় জুম্মনকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থা অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা।

সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলের দায়িত্বে নিয়োজিত ট্রাফিক পুলিশের টিআই শেখ এম এ করিম জানান, সকালে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল মোড়ের ডাচবাংলা ব্যাংক ইউটার্ন এলাকায় নিষিদ্ধ দু'ইটি ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক সংঘর্ষ লেগে একটি মহাসড়কের ওপর উল্টে যায়। খবর পেয়ে শিমরাইল এলাকার রেকারের দায়িত্বে থাকা ট্রাফিক পুলিশের এটিএসআই রাশেদুল ইসলাম ঘটনাস্থলে গিয়ে ইজিবাইকটি উদ্ধার করে শিমরাইল সাজেদা হাসপাতের পাশে ডাম্পিং স্টেশনে নিয়ে রেখে দেন। এর কিছুক্ষণ পর ইজিবাইক চালক জুম্মন ডাম্পিং ষ্টেশনের পাশে গিয়ে নিজেই তার পেটে ছুরি ঢুকিয়ে দেন। স্থানীয়রা এ ঘটনা দেখে ট্রাফিক পুলিশকে জানালে তারা সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের সহযোগিতায় জুম্মনকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় একটি হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করায়।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে টিআই শেখ এমএ করিম বলেন, ধারনা করা হচ্ছে ইজিবাইক চালক জুম্মন মাদকাসক্ত। কেউ মাদকাসক্ত না হলে এমন কাজ করতে পারেন না।  

নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশের শিমরাইলে রেকারের দায়িত্বে থাকা এটিএসআই রাশেদুল ইসলাম বলেন, আমাদের চোখ ফাঁকি দিয়ে মহাসড়কে ইজিবাইক হুট করে উঠে যায়। আমরা এগুলো আমাদের হেফাজতে নিয়ে জরিমানা করছি। 

তিনি বলেন, সকালে দু'টি ইজিবাইকের সংঘর্ষে একটি ঘটনাস্থলেই উল্টে যায় এবং অন্যটি পালাতে সক্ষম হয়। পরে খবর পেয়ে মহাসড়কে উল্টে যাওয়া ইজিবাইকটি উদ্ধার করে হেফাজতে নিয়ে যাই। পরে লোকমুখে খবর পাই ইজিবাইক চালক নিজের পেটে ছুরিকাঘাত করে আহত হয়েছেন। আমরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি।