আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের অনুষ্ঠানের ব্যানারে নাম না থাকায় ময়মনসিংহের গৌরীপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হাসান মারুফকে হত্যার হুমকি দিয়েছেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সোহেল রানা। তিনি উপজেলা স্বেচ্ছসেবক লীগেরও সভাপতি। বিষয়টি নিয়ে রোববার রাতে থানায় মামলা হলেও কাউকে গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ।

জানা গেছে, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রোববার সকালে উপজেলা প্রশাসন আলোচনা সভার আয়োজন করে। ওই সভার ব্যানারে স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নামোল্লেখ ছিল। তাতে নাম না থাকায় অন্তত ৫০ জনের একটি দল নিয়ে ইউএনওর কক্ষে গিয়ে সোহেল রানা চেঁচামেচি শুরু করেন। ইউএনওর টেবিল চাপড়ে তাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে মারতে উদ্যত হন। ভবিষ্যতে এ ধরনের অনুষ্ঠানের ব্যানারে নাম না থাকলে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেন সোহেল রানা।

এ ঘটনায় ইউএনও কার্যালয়ের কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে রোববার রাতে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এতে সোহেল রানাকে প্রধান করে ছয়জনের নামোল্লেখ করে অজ্ঞাতপরিচয় আরও অন্তত ৫০ জনকে আসামি করে অভিযোগ দায়ের করা হয়। পুলিশ রাতেই অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করে। 

ইউএনও হাসান মারুফ বলেন, তার কার্যালয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্ম দেন ভাইস চেয়ারম্যান। তিনি উচ্চবাচ্চ্য ও হুমকি দিতে শুরু করেন। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

সোহেল রানা বলেন, ব্যানারে নাম না দেওয়ার কারণ জানতে গেলে তার ওপর চড়াও হন ইউএনও। ওই সময় তার সঙ্গে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। কিন্তু তিনি হত্যার হুমকি দেননি। বিষয়টি নিয়ে মামলার পর্যায়ে যাবে এমনটিও ভাবেননি তিনি। তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে এমনটি করানো হয়েছে। 

গৌরীপুর থানার ওসি আবদুল হালিম সিদ্দিকী বলেন, বিষয়টি নিয়ে থানায় মামলা হয়েছে। তদন্ত শুরু করেছেন। জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করা হবে।

বিষয় : ইউএনওকে হত্যা হুমকি

মন্তব্য করুন