সিরাজগঞ্জে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে মুক্তিযোদ্ধাসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে কামারখন্দ উপজেলার কোনবাড়ি কলেজ মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, বগুড়ার শাহজাহানপুর উপজেলার প্রয়াত মোকছেদ আলীর ছেলে বি-ব্লকের বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলার রহমান (৭০), শেরপুর উপজেলার বেতগাড়ি গ্রামের ধীরেন চন্দ্রের ছেলে বিমল কুমার (৪৫), সারিয়াকান্দি উপজেলার হাসনাপাড়া গ্রামের প্রয়াত আব্দুর রউফের ছেলে খোকন মিয়া (৪০), শিবগঞ্জ উপজেলার করতকলা গ্রামের প্রয়াত আতাউর রহমানের ছেলে মানিক হোসেন ও সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার তামাই গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে মো. আব্দুল হান্নান (৬০)।

বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. নুরুল ইসলাম বলেন, সকালে বগুড়া থেকে ঢাকাগামী যুগান্তর পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৬৮৪০) ও ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী সয়াবিন তেল বহনকারী একটি ট্রাকের (বগুড়া-ড-১১-২৩০৭) মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই বাসে থাকা চারজনের মৃত্যু হয়। এরমধ্যে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন।

তিনি বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ হতাহতদের উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। কিন্তু হাসপাতালে পাঠানোর সময় আরও এক বাসযাত্রী নিহত হন।

দুর্ঘটনার কারণে মহাসড়কে প্রায় এক ঘণ্টা ধরে যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। সকাল সাড়ে ৯টার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। দুর্ঘটনাকবলিত যানবাহন দুটি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে থাকলেও ঘটনার পরপরই চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছেন।

সিরাজগঞ্জ ২ নম্বর পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ফারুক হোসেন চিকিৎসকদের বরাদ দিয়ে জানান, মরদেহগুলো জেনারেল হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। এছাড়া আহতদের মধ্যে ১০ জনকে ওই হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বিষয় : বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ

মন্তব্য করুন