নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের কাঁচপুর উত্তরপাড়া গ্রামে এক কিশোরীকে বান্ধবীর সহায়তায় কোমল পানীয়ের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ইসমাঈল নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে। সোমবার বিকেলে অভিযুক্ত ইসমাঈলের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনায় মঙ্গলবার দুপুরে ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় দু'জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। এরপর থেকে আসামিরা পলাতক রয়েছে। পরে পুলিশ ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ওই কিশোরীকে নারায়ণগঞ্জ ভিক্টরিয়া হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

মামলার এজহারে জানা গেছে, উপজেলার কাঁচপুর উত্তরপাড়া গ্রামের আল আমিনের মেয়ে লামিয়া আক্তার ভুক্তভোগী কিশোরীর বান্ধবী। ভুক্তভোগীর মা ও বাবা প্রতিদিন কাজে চলে যাওয়ার পর লামিয়া ওই কিশোরীর বাড়িতে নিয়মিতভাবে যাতায়ত করতো। সোমবার বিকেলে লামিয়া বাড়িতে গিয়ে চাচা একই গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে ইসমাঈলের বাড়িতে বেড়াতে নিয়ে যায় ওই কিশোরীকে। পরবর্তীতে কৌশলে কোমল পানীয়ের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে খাইয়ে তাকে অচেতন করে ওই কিশোরীকে ইসমাইল ধর্ষণ করেন। সন্ধ্যার দিকে জেগে ওই কিশোরী নিজেকে বিবস্ত্র অবস্থায় দেখতে পায়। পরে বাড়িতে গিয়ে তার মায়ের বিস্তারিত ঘটনা জানায়।

সোনারগাঁ থানার ওসি তদন্ত তবিদুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ওই কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ ভিক্টরিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।