মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হাসেন মিরু হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। বুধবার দুপুরে মিরুর বড় ভাই হিরু মিয়া বাদী হয়ে সিংগাইর থানায় এই মামলা দায়ের করেন। মামলায় করা তিন আসামিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। এ ছাড়া হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ব্যবহৃত দুই সিএনজি, মোটরসাইকেলসহ বেশ কয়েকটি ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

সিংগাইর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. রকিবুজ্জামান  জানান, সিসিটিভির ফুটেজ দেখে প্রথমে সিএনজি চালক ইমান আলীকে শনাক্ত করা হয়। এরপর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ইমান আলীকে আটক করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যনুযায়ী ইমরান মোল্লা, সোহান মোল্লাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এদের বাড়ি সিংগাইর উপজেলার আজিমপুর এলাকায়। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার মধ্যরাতে একটি অনুষ্ঠান থেকে মোটরসাইকেলযোগে ফেরার পথে সিংগাইর উপজেলা পরিষদের সামনে ফারুক হাসেন মিরুকে দুটি সিএনজি দিয়ে গতিরোধ করা হয়। পরে মুখোশাধারীরা এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর আহত করে মিরুকে। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ওইদিন রাতেই তাকে দাফন করা হয়।