ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আড়াইশো শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে হেনা বেগম (২০) নামের এক গৃহবধূর মরদেহ ফেলে পাালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় এ ঘটনা ঘটে । হেনা বেগম জেলার নাসিরনগর উপজেলার ফকিরদিয়া গ্রামের শাহজাহান মিয়ার স্ত্রী ।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সন্ধ্যায় হেনা বেগমকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন এক নারী ও পুরুষ । তারা  অসুস্থ হেনা বেগমের আত্মীয় পরিচয় দিয়ে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে বলেন।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আরিফুজ্জামান হিমেল জানান, মৃতের স্বজনরা জানিয়েছে, হেনা বেগম চালের পোকা মারার কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়ে অচেতন হয়ে পড়েন। পরে স্বজনরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে । কিন্তু হাসপাতালে আনার আধঘন্টা আগেই তিনি মারা যায় । মৃত্যুর  খবর পেয়ে স্বজনরা হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায় । হাসপাতালের কর্মচারীরা অনেক খোঁজাখুজি করেও মৃতের স্বজনদের খোঁজ পায়নি। পরে ওই গৃহবধূর মরদেহ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয় ।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুর রহিম জানান, বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্ত শেষে ওই গৃহবধূর মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।