নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রেমিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার আশিককে সোমবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। 

এর আগে রোববার রাতে নির্যাতিতা বাদী হয়ে আশিককে আসামি করে আড়াইহাজার থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। মামলা দায়েরের পরপরই পুলিশ পাঁচগাও চরপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে আশিককে গ্রেপ্তার করে। আশিক ওই এলাকার গোলাম মোস্তফার ছেলে।

নির্যাতিতা তরুণী জানান, স্থানীয় একটি সুতার কারখানায় শ্রমিকের কাজ করেন তিনি। ৪-৫ মাস আগে একই মিলের শ্রমিক বহনকারী গাড়িচালক আশিকের সঙ্গে পরিচয় এবং পরবর্তীতে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাকে নিয়ে আশিক বিভিন্ন সময় ঘুরতে যেতেন। গত ডিসেম্বরে আশিক তাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দৈহিক সম্পর্ক স্থাপনের প্রস্তাব দেন। এতে রাজি না হওয়ায় তাকে ধর্ষণ করেন। এতে ওই তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে আশিককে বিয়ের জন্য চাপ প্রয়োগ দেন। কিন্তু আশিক বিয়ে করতে রাজি না হলে তিনি বাদী হয়ে রোববার রাতে আড়াইহাজার থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, নির্যাতিতা মামলা দায়েরের পরপরই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে সোমবার কারাগারে পাঠানো হয়েছে।