কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, পাকিস্তানের এদেশীয় দোসর ও তাঁবেদাররা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও নারকীয় গণহত্যার স্মৃতি মুছে ফেলতে তৎপর। তারা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করে ও অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধ্বংস ও নষ্ট করতে চায়।

তিনি বলেন, যারা পাকিস্তানের উচ্ছিষ্টভোগী, দোসর ও তাঁবেদার; যারা পাকিস্তানের ধারায় ধর্মকে ব্যবহার করে দেশ ও দেশের মানুষকে শোষণ করতে চায়, তারাই মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বিকৃত করে। মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি বাহিনী ও তাদের সহযোগীদের দ্বারা সংঘটিত নারকীয় হত্যাকাণ্ডের ইতিহাস ও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন ওরা মুছে ফেলতে চায়। তাদের ব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

সোমবার বিকেলে টাঙ্গাইলে বধ্যভূমি সংলগ্ন মাঠে আয়োজিত 'বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিকেন্দ্র' নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. আতাউল গনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন টাঙ্গাইল জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান খান ফারুক। এ সময় টাঙ্গাইলের স্থানীয় এমপি তানভীর হাসান ছোট মনির, এমপি আতাউর রহমান খান, এমপি হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারী, এমপি ছানোয়ার হোসেন ও এমপি আহসানুল ইসলাম টিটু উপস্থিত ছিলেন।

বিকেলে মন্ত্রী টাঙ্গাইল পৌর উদ্যানে নাগরিক সমাজ আয়োজিত স্বাধীনতা যুদ্ধে অসামান্য অবদানের জন্য একুশে পদকপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান খান ফারুককে দেওয়া এক নাগরিক সংবর্ধনায় যোগদান করেন।