কক্সাবাজার শরণার্থী শিবির থেকে পাঠানো রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখতে নোয়াখালী ভাসানচর পরিদর্শনে যাচ্ছে জাতিসংঘের একটি প্রতিনিধি দল। বুধবার সকালে চট্রগ্রাম থেকে নৌবাহিনীর তত্ত্বাবধানে ইউএনএইচসিআর বাংলাদেশের সহকারী প্রতিনিধি ফুমিকো কাশিওয়ার নেতৃত্বে ১৭ জনের প্রতিনিধি দল রওনা হবে। দুপুরে তাদের ভাসানচরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। 

প্রতিনিধি দলটি ভাসানচনে দু'দিন অবস্থান করবে এবং সেখানকার পরিবেশ-পরিস্থিতি ঘুরে দেখবে। রোহিঙ্গাদের সঙ্গেও বৈঠক করার কথা রয়েছে তাদের।

এর আগে সর্বশেষ চলতি মার্চের শুরুতে ভাসানচর পরিদর্শন করেছিল মুসলিম দেশগুলোর জোট ওআইসি'র একটি প্রতিনিধিদল। 

ভাসানচর প্রকল্পের (আশ্রয়ণ প্রকল্প-৩) উপ-প্রকল্পের পরিচালক কমান্ডার এম আনোয়ারুল কবির বলেন, 'বুধবার ভাসানচরে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল আসার কথা রয়েছে। আমরাও সেভাবে প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। তবে প্রতিনিধি দলটিতে কারা থাকছেন, সেটি এখন বলা যাচ্ছে না। দলটির রোহিঙ্গাদের সঙ্গে দেখার করা কথা রয়েছে।'

আরআরআরসি কার্যালয়ের তথ্যমতে, গত ডিসেম্বর থেকে পাঁচ দফায় ভাসানচরে গেছেন মোট ১৩ হাজার ৭২৩ রোহিঙ্গা। এর আগে গত বছরের মে মাসে অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা করা ৩০৬ রোহিঙ্গাকে সমুদ্র থেকে উদ্ধার করে সেখানে নিয়ে রাখা হয়। এছাড়া এরও আগে অবৈধভাবে সাগরপথে মালয়েশিয়া যেতে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসা ৩০৬ জন রোহিঙ্গাকে গত বছরের মে মাসে ভাসানচর নেওয়া হয়।

এ বিষয়ে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) মুখপাত্র মোস্তফা মোহাম্মদ সাজ্জাদ সোমবার জানিয়েছেন, বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে জাতিসংঘ শিগগিরই ভাসানচর পরিদর্শনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মিয়ানমার অনুবিভাগের মহাপরিচালক (ডিজি) মোহাম্মাদ দেলোয়ার হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, 'ভাসানচরে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের স্থানান্তর ও সেখানে তাদের মানবিক সহায়তা দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে জাতিসংঘের সাথে আমাদের আলাপ-আলোচনা চলছিল। এরই অংশ হিসেবে বুধবার তাদের সেখানে যাওয়ার কথা রয়েছে।'

টেকনাফের লেদা ক্যাম্পের নতুন শরণার্থী শিবিরের রোহিঙ্গা নেতা মোস্তফা কামাল বলেন, জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল ভাসানচরে গেলে সেটি রোহিঙ্গাদের জন্য ভালো খবর। সেখানকার পরিস্থিতি দেখে তারাই রোহিঙ্গাদের ভবিষ্যতের ব্যাপারে সঠিক সিদ্ধান্তটি নিতে পারবে। পাশপাশি কক্সবাজারের ক্যাম্পগুলোয় এখনো যারা ভাসানচরে যাওয়া না যাওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্তহীনতা ভুগছে, জাতিসংঘের মতামত তাদের দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে।

উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্প থেকে ভাসানচরে যাওয়া নুরুল ইসলাম মুঠোফোনে বলেন, 'প্রথমবারের মতো জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল আসছে- এমন খবর রোহিঙ্গাদের কাছেও পৌঁছেছে। তাই নানা প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে। তাদের কাছে আমরা এখানকার পরিস্থিতি তুলে ধরব। কারণ তারাই শরণার্থীদের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা পাবার ভরসাস্থল।'

তিনি আরও বলেন, 'প্রতিনিধি দলকে অনুরোধ করব তারা যাতে এখানকার সকল কার্যক্রমে যুক্ত থাকে। আর ভাসানচরে বড়ো ধরনের রোগের চিকিৎসাসেবা ছাড়া সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছি। সবরকম স্বাস্থ্যসেবা যাতে এখানে পাওয়া যায় সেই দাবি জানাব।'

এ ব্যাপারে নোয়াখালীর ভাসানচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মাহে আলম জানান, 'জাতিসংঘের ১৭ জনের একটি প্রতিনিধি দল চট্টগ্রাম থেকে দুপুরে ভাসানচরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। প্রতিনিধি দলটি ভাসানচরে দুই দিন অবস্থান করে সেখানকার পরিবেশ, পরিস্থিতি ঘুরে দেখে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হবার কথা রয়েছে।'