হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের একটি কেবিন থেকে এক বীর মুক্তিযোদ্ধার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বরাদ্দ করা কেবিনের দরজা ভেঙে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বীরেশ দাশ (৬৫) নামে ওই মুক্তিযোদ্ধা শহরের শ্যামলী এলাকার বাসিন্দা।

বীরেশ দাশ গত ১ মার্চ কিডনিজনিত রোগসহ বিভিন্ন রোগে সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। মঙ্গলবার রাতে পরিবারের সদস্যরা তাকে একা রেখে বাসায় চলে যান। বুধবার সকালে তার ছেলে বিজয় দাশ এসে দেখতে পান তার দরজা বন্ধ। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা সদর থানায় খবর দেয়। পুলিশ দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে দেখে, মুক্তিযোদ্ধার মরদেহ রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে।

বীরেশ দাশের ছেলে বিজয় দাশ বলেন, গত ১ মার্চ বাবাকে হাসপাতালে ভর্তি করেছিলাম। মঙ্গলবার রাতে তাকে মুক্তিযোদ্ধা ওয়ার্ডে রেখে বাসায় চলে যাই। সকালে এসে দেখি কেবিনের দরজা বন্ধ। পরে দরজা ভেঙে দেখা যায়, বেডের নিচে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন বাবা।

সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. হেলাল উদ্দিন বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা বীরেশ দাশ সদর হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। বুধবার সকালে তার ছেলে এসে দেখতে পান দরজা বন্ধ। অনেক ডাকাডাকি করার পরও কোনো সাড়া না দেওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অবগত করেন। পরে পুলিশ নিয়ে তার দরজা ভেঙে দেখতে পাই বেডের নিছে মরদেহ পড়ে রয়েছে।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাইদুর রহমান বলেন, অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধার শরীরিক অবস্থা মুমূর্ষু ছিল। এ জন্য হয়ত বিছানা থেকে পড়ে রক্তাক্ত জখম পেয়ে মারা গেছেন। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

বিষয় : মুক্তিযোদ্ধা মরদেহ হবিগঞ্জ

মন্তব্য করুন