সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে সংখ্যালঘুদের বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় করা মামলায় আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শনিবার রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছেন শাল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাজমুল হক।

এ নিয়ে নোয়াগাঁওয়ে হামলার ঘটনায় ৩৩ জন গ্রেপ্তার হলেন। মামলার প্রধান আসামি শহীদুল ইসলাম স্বাধীন ওরফে স্বাধীন মেম্বারকে শুক্রবার রাতে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাস আপন নামের এক তরুণের ফেসবুক আইডি থেকে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মামনুল হককে কটাক্ষ করে স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে গত বুধবার সকালে ওই গ্রামের ধর্মীয় সংখ্যালঘু বাসিন্দাদের অন্তত ৮৮টি বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট এবং গ্রামের পাঁচটি মন্দির ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।