স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবে শুক্রবার বগুড়ায় সাড়ে ১৩ হাজার বর্গফুট আয়তনের জাতীয় পতাকা প্রদর্শন করা হয়েছে। পতাকাটির দৈর্ঘ্য ১৫০ ফুট ও প্রস্থ ৯০ ফুট। বগুড়া জিলা স্কুলে প্রদর্শিত এই জাতীয় পতাকা দেশের সর্ববৃহৎ পতাকা বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা। 

স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের আয়োজনে সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউল হক।

বগুড়া জিলা স্কুল অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সহসভাপতি রেজাউল বারী ঈশার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. আরশাদ সায়ীদ, মাসুদার রহমান হেলাল ও আকতারুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজনু, সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সামির হোসেন মিশু, বগুড়া জিলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্যামপদ মুস্তফীসহ অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য ও শিক্ষার্থীরা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী ও গণমাধ্যমকর্মী রাকিব জুয়েল এবং কনক পাল।

আয়োজকরা জানান, প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের তত্ত্বাবধানে জিলা স্কুলমাঠে গত ৬ মার্চ থেকে বিশাল এই পতাকা তৈরির কাজ চলে। দর্জি রানা মিয়ার নেতৃত্বে ছয়জন দর্জি এ পতাকা তৈরি করেন।

আয়োজকদের মধ্যে জিলা স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আরশাদ সায়ীদ জানান, তাদের জানামতে এখন পর্যন্ত এটি দেশের মধ্যে সর্ববৃহৎ জাতীয় পতাকা। পতাকা প্রদর্শনের পর তারা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র মন্ত্রণালয়ে পাঠাবেন এবং স্বীকৃতির জন্য পরবর্তী পদক্ষেপ নেবেন।