লক্ষ্মীপুরের মেঘনা নদীর ভোলা এলাকায় প্রতিপক্ষের হামলায় নিখোঁজের ৪ মাস পর কৃষক রাকিবের মৃতদেহের অংশবিশেষ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে সদর উপজেলার চররমনী মোহন ইউনিয়নের চরমেঘা এলাকা থেকে তার মাথার খুলি ও কয়েকটি হাড় উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, দীর্ঘ চার মাস পর নিখোঁজ রাকিবের মাথার খুলি উদ্ধার করা হয়েছে। রাকিবের পরিবারের লোকজন মৃতদেহ শনাক্ত করেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে মর্গে খুলিটি রাখা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাকিব উপজেলার চররমনী মোহন ইউনিয়নের চরমেঘার বাসিন্দা হারিছ সরদারের ছেলে। গত বছরের ২৩ নভেম্বর বিকালে ভোলার রাসেল খাঁ গংদের লোকজন লক্ষ্মীপুর-ভোলায় মেঘনায় জেগে উঠা চর দখল করতে আসলে বাধা দিতে গিয়ে নিখোঁজ হন তিনি। ওসময় চর দখলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আরো ১০ জন আহত হয়। এনিয়ে রাকিবের বাবা হারিছ সর্দার একটি হত্যা মামলা করেন।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার ওসি (তদন্ত) শিপন বড়ুয়া জানান, গত বছর চারমাস আগে লক্ষ্মীপুর-ভোলায় মেঘনায় জেগে উঠা চরে দখলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহতসহ কৃষক রাকিব নিখোঁজ হয়। ওই ঘটনায় রাকিবের বাবা মামলা করলে শুক্রবার সদর উপজেলার চরমেঘা এলাকা থেকে একটি মাথার খুলি উদ্ধার করা হয়। পরে নিহতের স্বজনরা মাথার খুলিতে পূর্বের আঘাতের চিহ্ন দেখে সেটি রাকিবের বলে শনাক্ত করেন। 

মন্তব্য করুন