কুমিল্লার যুবলীগ কর্মী জিল্লুর রহমান চৌধুরী ওরফে গোলাম জিলানী হত্যা মামলার প্রধান আসামি আওয়ামী লীগ নেতা কাউন্সিলর আবুল হাসানের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। 

রোববার কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট-২ আমলি আদালতের বিচারক ইরফানুল হক চৌধুরী শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কুমিল্লার পুলিশ পরিদর্শক বিপুল চন্দ্র দেবনাথ এ তথ্য জানান।

জিল্লুর হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই পলাতক ছিলেন কাউন্সিলর হাসান। একপর্যায়ে উচ্চ আদালত থেকে চার সপ্তাহের আগাম জামিন নেন তিনি। ওই জামিনের মেয়াদ শেষ হলে গত ১৫ মার্চ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আতাবুল্ল্লাহর আদালতে হাজির হয়ে ফের জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বর্তমানে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে থাকা নগরীর ২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসান একই ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতির পদে রয়েছেন। জামিন আবেদনের পরদিন তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা।

রোববার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই কুমিল্লার পুলিশ পরিদর্শক বিপুল চন্দ্র দেবনাথ বলেন, মামলার প্রধান আসামি কাউন্সিলর হাসানের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আগামী দু-এক দিনের মধ্যে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পিবিআই কার্যালয়ে আনা হবে। তার কাছ থেকে মামলার বিষয়ে অনেক তথ্য জানার আছে।

মামলার বাদী ইমরান হোসেন চৌধুরী বলেন, রিমান্ডে এনে ভালোভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই হাসান সব স্বীকার করবে। আমরা খুনিদের ফাঁসি চাই।