খুলনায় তানিশা আক্তার নামে পাঁচ বছর বয়সী একটি ঘুমন্ত শিশুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। সোমবার রাত ১০টার দিকে তেরখাদা উপজেলার আড়কান্দী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ শিশুটির সৎ মা মুক্তা খাতুনকে আটক করেছে।

নিহত তানিশা আক্তারের বাবা আড়কান্দী গ্রামের খাজা শেখ আনসার ব্যাটালিয়নে কর্মরত।

পুলিশ জানিয়েছে, খাজা শেখ সাত বছর আগে একই উপজেলার আক্কাস শেখের মেয়ে তাসলিমাকে বিয়ে করেছিলেন। পরে দাম্পত্য কলহের একপর্যায়ে বিবাহবিচ্ছেদ ঘটে তাদের। বছর দেড়েক হয় মুক্তা খাতুনকে বিবাহ করেন খাজা শেখ। কিন্তু কোনোভাবেই শিশু তানিশাকে মেনে নিতে পারছিলেন না সৎ মা মুক্তা খাতুন। ধারণা করা হচ্ছে, এর জের ধরেই ঘুমন্ত অবস্থায় শিশু তানিশাকে কুপিয়ে জখম করেন মুক্তা। শিশুটির চিৎকারে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তেরখাদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. গোলাম মোস্তফা জানান, নিহত তানিশার বাবা খাজা শেখ ঘটনার সময় বাড়িতে ছিলেন না। পুলিশ রাতেই মুক্তা খাতুনকে রক্তমাখা দাসহ আটক করেছে।