গাইবান্ধায় জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মাসুদ রানার বাড়ি থেকে হাসান আলী (৩৮) নামে এক ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার সকালে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে আওয়ামী লীগ নেতা মাসুদ রানাকে আটক করেছে পুলিশ।

হাসান আলী জেলা শহরের থানাপাড়া এলাকার মৃত হজরত আলীর ছেলে। তিনি জেলা শহরের স্টেশন এলাকায় জুতার ব্যবসা করতেন। পাওনা টাকার কিস্তি না দেওয়ায় টানা এক মাস তাকে মাসুদ রানার বাড়িতে আটকে রাখা হয় বলে তার স্ত্রী বিথী বেগমের দায়ের করা একটি অভিযোগ থেকে জানা গেছে।

গত ৭ মার্চ সদর থানায় অভিযোগটি দায়ের করা হয়। এতে বলা হয়, গত ৬ মার্চ হাসানকে তার বাসা থেকে ব্যবসা সংক্রান্ত কথা আছে বলে নিয়ে যান মাসুদ রানা। এরপর হাসানকে আটকে রেখে মানসিক নির্যাতন এবং ভয়ভীতি দেখান মাসুদ। এ অবস্থায় বিথী অভিযোগ দিলে মাসুদের বাড়ি থেকে হাসানকে উদ্ধার করে পুলিশ।

কিন্তু থানায় নিয়ে আসার পর আবারও হাসানকে মাসুদ রানার জিম্মায় দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন বিথী। গাইবান্ধা সদর থানা কর্তৃপক্ষকে লিখিত দিয়ে হাসানকে আবারও নিজ বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি স্বীকারও করেছেন মাসুদ। সেই থেকে মাসুদের বাড়িতেই আটক ছিলেন হাসান, এ অভিযোগ তার স্ত্রীর।

গাইবান্ধা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহফুজুর রহমান ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মন্তব্য করুন