ভোটার তালিকায় 'মৃত' হতদরিদ্র শানু বেগমকে (৬৫) অবশেষে জীবিত দেখানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বরিশালের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আলাউদ্দিন রোববার এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন।

একই সঙ্গে শানু বেগমকে মৃত দেখানোর ঘটনার জন্য অভিযুক্ত ভোটার তথ্য সংগ্রহকারী উপজেলার চরকমিশনার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিজাম উদ্দীন ও সুপারভাইজার উপজেলার প্যাদারহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কবির হোসেনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। ৭ দিনের মধ্যে তাদের অভিযোগের জবাব দিতে হবে। ২০১৯ সালে ভোটার তালিকা হালনাগাদ করার সময় তারা দায়িত্বে ছিলেন।

আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আলাউদ্দিন বলেন, জীবিত শানু বেগমকে ভোটার তালিকায় মৃত দেখানো দুঃখজনক। তাকে জীবিত দেখাতে নির্বাচন কমিশনের প্রধান কার্যালয়ের জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগে শানু বেগমের লিখিত আবেদন পাঠানো হয়েছে। দ্রুত সংশোধনের জন্য বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয় থেকে সব ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি দ্রুত সমাধান হবে বলে তিনি আশাবাদী।

বরিশালের মুলাদী উপজেলার কাজীরচর ইউনিয়নের মৃত মান্নান ফরাজির স্ত্রী শানু বেগমকে ২০১৯ সালের হালনাগাদ ভোটার তালিকায় মৃত দেখানো হয়েছে। এতে তার বিধবা ভাতা বন্ধ হয়ে যায়। এ নিয়ে রোববার সমকালে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

বিষয় : ভোটার শানু বেগম

মন্তব্য করুন