কক্সবাজারের টেকনাফের পাহাড়ি এলাকায় ডাকাত দলের ছুরিকাঘাতে ইমান হোসেন (১৮) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। সোমবার ভোরে তার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

নিহত ইমান হ্নীলা ইউনিয়নের লেদা এলাকার আব্দুর রহিমের ছেলে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়রের নুরালী পাড়া বাসিন্দা কবির আহম্মদের ছেলে মো. ইমরানকে (২৩) আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আবুল হোসেনের ছেলে ডাকাত আব্দুল খালেকের নেতৃত্বে একটি দল ক্যাম্পে দীর্ঘদিন ধরে অপরাধ কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছিল। তারই সূত্র ধরে স্থানীয় যুবক ইমান হোসেনের কথা কাটাকাটি হয়। এসময় ডাকাত খালেক স্থানীয় যুবক ইমানকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সোর্স বলে গালাগাল করে। তার মাধ্যমে আইন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করে বলে দাবি করে। উভয় পক্ষের তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে খালেক ইমানকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে তিনি মাটিতে পড়ে যান। পরে ডাকাত খালেকের ভাই গুরা পুতিয়া, সহযোগী সৈয়দ নুরসহ তার দলের লোকজনরা ইমানকে ছুরিকাঘাত করে মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। এসময় একটি ছুরি উদ্ধার করা হয়। 

এ বিষয়ে টেকনাফ মডেল থানার ওসি হাফিজুর রহমান বলেন, ডাকাত দলের হাতে নিহত এক যুবকের মরদেহ ক্যাম্পের পাহাড়ি এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের শরীরে ছুরিকাঘাতসহ বিভিন্ন জখম দেখা গেছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।