টাঙ্গাইলের সখীপুরে দাম্পত্য কলহের জের ধরে স্বামী খুন হয়েছেন। এ ঘটনায় মঙ্গলবার নিহতের স্ত্রী হামিদা আক্তারকে (২৫) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। 

এর আগে সকালে পুলিশ হামিদার পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে টাঙ্গাইল জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আবেদন করে। 

বিষয়টি নিশ্চিত সখীপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এএইচএম লুৎফুল কবির উদয় জানান, এ ঘটনায় সোমাবার রাতে নিহত কিতাব আলীর প্রথম স্ত্রীর মেয়ে লাভলী আক্তার বাদী হয়ে সখীপুর থানায় মামলা করেন। পরে রাতেই অভিযুক্ত নিহতের তৃতীয় স্ত্রী হামিদা আক্তারকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, হামিদা কিতাব আলীর তৃতীয় স্ত্রী। আগের দুই স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়েছে তার। হামিদার গর্ভে তাদের চার বছরের এক ছেলে সন্তান রয়েছে। নিহত কিতাব আলী ভাঙারির ব্যবসা করতেন।

জানা গেছে, সোমবার স্বামী-স্ত্রী ঝগড়ার এক পর্যায়ে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন তারা। এসময় একজন অপরজনকে কামড় দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে হামিদা স্বামী কিতাব আলীর অন্ডকোষে লাথি মারেন। এ সময় কিতাব আলী মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে প্রতিবেশীরা গুরুতর আহত কিতাব আলীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এএইচএম লুৎফুল কবির উদয় জানান, নিহতের লাশের বিভিন্ন স্থানে কামড় ও অন্ডকোষে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।