কুড়িগ্রামের সদর উপজেলার মোগলবাসা ইউনিয়নের চর সিতাইঝাড় এলাকায় ৭ বছর বয়সী কন্যাশিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে আলম মিয়া (৪০) নামে চায়ের দোকানের এক কর্মচারিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার সকালে শিশুটির মা বাদী হয়ে আলম মিয়াকে আসামি করে মামলা দায়েরের পরই আসামিকে গ্রেপ্তারে অভিযানে নামে পুলিশ। এরপর দুপুরের দিকে আলম মিয়াকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়। আলম মিয়া বিবাহিত এবং চর সিতাইঝাড় গ্রামের মৃত ওমর আলীর ছেলে। 

এদিকে ধর্ষণের শিকার শিশুটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাকে জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার শিশুটিকে ধর্ষণ করেন স্থানীয় চায়ের দোকানের কর্মচারি আলম মিয়া। পরে নানা ধরণের ভয়ভীতি দেখানোয় শিশুটি এ ঘটনা কাউকে জানায়নি। ঘটনার ৩ দিন পর বৃহস্পতিবার প্রচণ্ড ব্যথা ও রক্তপাত শুরু হলে শিশুটি তার মাকে সব কিছু জানায়। পরে শিশুটিকে জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সদর থানার ওসি খান মো. শাহরিয়ার বলেন, শিশুটির মায়ের অভিযোগ মামলা হিসেবে রেকর্ড করা করার পরপর অভিযান চালিয়ে আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শনিবার জেনারেল হাসপাতালে শিশুটির শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন হবে।  

বিষয় : ধর্ষণ শিশু ধর্ষণ

মন্তব্য করুন