ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় তাস খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ফারুক মিয়া (৪৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। শনিবার বিকেলে ঢাকা হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী নিলোফা বেগম বাদী হয়ে দুইজনকে আসামি করে কসবা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, শুক্রবার বিকেলে মামলার স্বাক্ষী মো.লিটন মিয়া নিহত ফারুক মিয়াকে মোবাইল ফোনে ডেকে কুটি-চৌমুহনী নিয়ে যায়। সেখানে তারা দুইজনসহ চারজনে মিলে তাস খেলায় বসে। খেলার মধ্যেই তাদের ঝগড়া লাগে। এক পর্যায়ে অভিয্ক্তু পৌর এলাকার শাহপুর গ্রামের ফায়েজ মিয়ার ছেলে কামাল মিয়া ও দেলোয়ার মিয়া হাতে থাকা রড ও কাঠের টুকরো দিয়ে এলোপাথারিভাবে ফারুক মিয়াকে মারতে থাকেন। এ সময় ফারুক মিয়ার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কুমিল্লা হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। সেখান থেকে শনিবার বিকেলে ঢাকা হাসপাতালে নেওয়ার পথে ফারুক মিয়া মারা যান।

কসবা থানা অফিসার ইনচার্জ মো.আলমগীর ভুইয়া বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফারুক মিয়াকে হত্যা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে দুজনকে আসামি করে কসবা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে রোববার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।



মন্তব্য করুন