করোনার টিকা নিতে বন্দর নগরী চট্টগ্রামের সিটি করপোরেশন (চসিক) জেনারেল হাসপাতালে গিয়েও টিকা না পেয়েই ফিরতে হয়েছে অনেককে। 

রোববার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত হাসপাতালের মূল ফটকের সামনে করোনার দ্বিতীয় ডোজ নিতে আসা কয়েকশ মানুষ জড়ো হলেও কেউ নিতে পারেননি টিকা। টিকা না পেয়ে এক পর্যায়ে রাস্তায় দাঁড়িয়ে বিক্ষোভ করেছেন টিকা প্রত্যাশীরা। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, টিকার তারিখ ও এসএমএস দেওয়া হয়নি এমন অনেকে টিকার জন্য ভিড় করেছেন। এজন্য ঝামেলার সৃষ্টি হয়েছে।

নগরের পাথরঘাটা আশরাফ আলী রোডের বাসিন্দা বিপস্নব চৌধুরী সমকালকে বলেন, দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়ার তারিখ জানিয়ে আমার মোবাইল ফোনে এসএমএস আসে। তাই কাগজ নিয়ে সকালে চট্টগ্রামের সিটি করপোরেশন জেনারেল হাসপাতাল কেন্দ্রে ছুটে আসি। কিন্তু হাসপাতালের প্রধান ফটকে দুই ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকার পরও ভেতরে ঢুকতে পারিনি। গেটম্যানরা বলছেন টিকা দেওয়া যাবে না। টিকা নাকি শেষ।

আরেক ভুক্তভোগী সীমা ইসলাম বলেন, 'টিকা গ্রহণের নির্ধারিত দিন ছিল রোববার। কিন্তু সাড়ে তিন ঘণ্টা অপেক্ষা করেও টিকা নিতে পারিনি। টিকার আশায় দীর্ঘক্ষণ হাসপাতালের প্রধান ফটকের সামনে দাঁড়িয়ে থাকলেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কোনো সুদত্তর মেলেনি। বিষয়টি খুবই উদ্বেগের। এভাবে আমাদেরকে কষ্ট দেওয়ার কোনো মানে হয় না।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী জানান, স্বাভাবিকভাবেই আমাদের টিকা কার্যক্রম অব্যাহত আছে। রোববার সকাল থেকেই হাসপাতালের প্রধান ফটকের সামনে বাড়তি অনেক মানুষের ভিড় ছিল। তাদের বেশিরভাগের টিকার তারিখ ও এসএমএস দেওয়া হয়নি। এ কারণে ঝামেলার সৃষ্টি হয়। টিকা নিতে আসা কয়েকজন হাসপাতালের কর্মচারীদের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। দুপুরের পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যায়।

এদিকে চমেক হাসপাতালেও টিকার মজুদ শেষের পথে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল এসএম হুমায়ুন কবির। তিনি বলেন, 'টিকা শেষ হয়ে যাওয়ায় সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে অল্প সংখ্যক টিকা এনে সীমিত পরিসরে টিকাদান কার্যক্রম চালাচ্ছি। সেটি দিয়েও আর বেশিদিন চালিয়ে নেওয়া সম্ভব হবে না।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, বেশকিছু টিকাদান সেন্টারে টিকার মজুদ ফুরিয়ে আসছে। বিষয়টি আমরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

আরও ৭৪ রোগী শনাক্ত, মৃত্যু ৮

চট্টগ্রামে করোনা রোগীর সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে অর্ধ লাখের ঘর। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন আরও ৭৪ জন। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৫১ হাজার ৯৩ জন। একই দিন করোনায় মারা গেছেন ৮ জন। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাব ও চট্টগ্রামের ৬টি ল্যাবে ১ হাজার ১৯৭টি নমুনা পরীক্ষায় নতুন এসব রোগী শনাক্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সিভিল সার্জন কার্যালয়। রোববার এ তথ্য প্রকাশ করে তারা।

মন্তব্য করুন