বরিশালে মালিহা ফরিদী সারা (২০) নামে এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার রাত দেড়টার দিকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

মালিহা ফরিদী সারা বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ পৌরশহরের অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা একেএম ফরিদ আহমদের মেয়ে। তিনি নগরীর কলেজ এভিনিউ সড়কের ৩ নম্বর লেনের একটি ভবনের একটি ফ্লাটে ভাড়া থাকতেন এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজের (ইউজিভি) স্নাতক তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নুরুল ইসলাম জানান, ওই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর সঙ্গে সরকারি বরিশাল কলেজের অনার্সের শিক্ষার্থী ও নগরীর একটি ফোনের শো রুমের এক কর্মচারীর প্রেমের সম্পর্ক ছিলো বলে জানা গেছে। ওই ছেলের বাবা-মায়ের দাবি- তারা শনিবার রাতে সারার বাসায় গিয়ে ওই ছাত্রীকে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় পেয়েছেন। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসকরা সারাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি বলেন, ‘তবে ওই ছাত্রীর গলায় ফাঁস দেওয়ার কোনো চিহ্ন কিংবা দাগ ছিলো না। তার মৃত্যু রহস্যজনক। এ কারণে মৃত্যুর সঠিক কারণ নিশ্চিত করতে ময়নাতদন্তের জন্য ওই ছাত্রীর লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’