রংপুরের মিঠাপুকুরে রামদেব রবিদাশ পরিবার ১১ দিন ধরে অবরুদ্ধ রয়েছে। প্রতিবেশীরা বসতবাড়ির যাতায়াতের রাস্তায় প্রাচীর নির্মাণ করায় ভোগান্তিতে পড়েছে পরিবারটি।

এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনারের কাছে লিখিত আবেদন করেছেন তারা।

জানা যায়, উপজেলার লতিবপুর ইউনিয়নের হাতিমপুর গ্রামে ১৫০টি পরিবার শত বছর ধরে বংশপরম্পরায় বসবাস করছে। ওই গ্রামের মৃত সুখদেব রবিদাশের ছেলে রামদেব রবিদাশ। তার প্রতিবেশী বিদেশি হারাধন নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে সমঝোতার ভিত্তিতে রেকর্ডীয় রাস্তা দিয়ে দুই পরিবারের সদস্যরা চলাচল করে আসছেন। হঠাৎ গত ২৯ এপ্রিল হারাধন ওই রাস্তার ওপর প্রাচীর নির্মাণ শুরু করেন। এ ঘটনায় রামদেব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দেন। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ বন্ধ করে দেন। তবে তারা যাওয়ার পরই পুরো প্রাচীর নির্মাণ করেন হারাধন। এ কারণে পরিবার নিয়ে অবরুদ্ধ জীবনযাপন করছেন রবিদাশ।

তিনি অভিযোগ করেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে না। চলাচলের রাস্তা দেওয়া না হলে আমাকে পরিবার-পরিজন নিয়ে বন্দি অবস্থাতেই মরে যেতে হবে। অভিযুক্ত হারাধন বলেন, ক্রয়সূত্রে আমি ওই জমির মালিক। সে কারণে প্রাচীর নির্মাণ করে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মামুন ভুঁইয়া বলেন, অভিযোগের তদন্ত করা হচ্ছে। চলাচলের রাস্তাটি সরকারি রেকর্ডীয় হলে তা উদ্ধার করে দেওয়া হবে।

বিষয় : অবরুদ্ধ মিঠাপুকুর রংপুর

মন্তব্য করুন