মাদারীপুরের শিবচরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে সাতজন গুলিবিদ্ধসহ উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের আকনকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এক চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান মাদবর ও সাবেক চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন বেপারীর মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আগে থেকেই বিরোধ চলছিল। শনিবার সন্ধ্যায় ওই ইউনিয়নের আকনকান্দি গ্রামের একটি রাস্তায় আতিক মাদবরের সমর্থক মিরাজ আকন ও মনোয়ার বেপারীর সমর্থক তুষার বেপারীর সাথে ইউপি নির্বাচন নিয়ে কথাকাটি শুরু হয়।এক পর্যায় তুষার বেপারী লাঠি দিয়ে মিরাজ আকনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে চলে যায়। পরে এ ঘটনার জের ধরে দুইপক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে ‘গোলাগুলি' শুরু হয়। এতে সাতজন গুলিবিদ্ধ ছাড়াও আরও কয়েকজন আহত হন।

আহতদের মধ্যে কয়েকজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোয়ার হোসেন বেপারী, শাহাদাৎ বেপারী, কাদির বেপারী, আলমগীর বেপারীসহ চারজনকে আটক করেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ড. মো. এমদাদুল হক রাসেল বলেন, রাতে সংঘর্ষে আহত কয়েকজন হাসপাতালে এসেছে। এর মধ্যে ৭ জন গুলিবিদ্ধ ছিল। আহতদের চিকিৎসা চলছে।

শিবচর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মিরাজুল হোসেন বলেন, এ ঘটনায় চারজনকে আটক করা হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।