নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায় একটি কওমী মাদ্রাসার এক ছাত্রকে (১১) বলাৎকারের অভিযোগে ওই মাদ্রাসার এক শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার ভোরে সদর উপজেলার খোলাবাড়িয়া গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আটক আব্দুর রহিম কালু (২৫) তালশো আল জামিয়া হুসাইনা মদিনাতুল উলুম হাফিজিয়া ও ক্যাডেট মাদ্রাসার শিক্ষক। তিনি সদর উপজেলার কাঠালবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে ভুক্তভোগী ছাত্রের বাবা শিক্ষক আব্দুর রহিমের বিরুদ্ধে বড়াইগ্রাম থানায় মামলা করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, মহামারী করোনার কারণে মাদ্রাসা বন্ধ ছিল। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শিক্ষক আব্দুর রহিম কালু ওই ছাত্রকে জরুরি কাজের কথা বলে বাড়ি থেকে মাদ্রাসায় ডেকে নেন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে ছেলেটি বাড়ি ফিরে তার বাবা-মাকে জানায়, শিক্ষক আব্দুর রহিম তাকে মাদ্রাসার দ্বিতীয় তলায় নিয়ে বলাৎকার করেছেন। পরে রাতে ছেলেটি অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ওই শিক্ষার্থীর বাবা জানান, ঘটনার পর থেকে তার ছেলে কিছুই খেতে চাইছে না। বারবার আত্মহত্যা করার চেষ্টা করছে।

বড়াইগ্রাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুর রহিম জানান, নির্যাতিত শিক্ষার্থীর বাবার করা মামলায় শিক্ষক আব্দুর রহিমকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।