পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় দুটি চিত্রা মায়া হরিণ লোকালয় থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার বলেশ্বর নদ তীরবর্তী বেতমোর ইউনিয়নের উলুবাড়িয়া ও আমড়াগাছিয়া ইউনিয়নের গোলবুনিয়া গ্রাম থেকে হরিণ দুটি উদ্ধার করা হয়।

ধারণা করা হচ্ছে, ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে অতি জোয়ার ও জলোচ্ছ্বাসের কারণে হরিণ দুটি পূর্ব সুন্দরবন থেকে ভেসে এসেছে।  পরে সকাল ১০ টায় হরিণ দুটি শরণখোলা রেঞ্জের বগী ফরেস্ট স্টেশনের বন প্রহরী সৈয়দ হাবিবুর রহমানের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

জানা গেছে, বলেশ্বর নদ তীরবর্তী উপজেলার বেতমোর ইউনিয়নের উলুবাড়িয়া গ্রামের জেলে শহিদুল ইসলাম খুব সকালে নৌকার পানি সেচ করে ঘরে ফেরার পথে বেড়িবাঁধের পাশে জঙ্গলের ভিতর একটি হরিণ দেখতে পান। এ সময় তিনি তাড়া করলে হরিণটি দৌড়ে পূর্ব দিকের মাঠে যায়। পরে এলাকাবাসী বিশ্বাস বাড়ির সামনে থেকে হরিণটি উদ্ধার করে। কিছু সময় পর কাছাকাছি আমড়াগাছিয়া ইউনিয়নের গোলবুনিয়া গ্রামের বেড়িবাঁধের ওপর আরও একটি হরিণ দেখতে পান স্থানীয়রা। পরে সেই হরিণটিকেও উদ্ধার করেন তারা।

মঠবাড়িয়া উপজেলা বন কর্মকর্তা মো.ফকরুদ্দিন বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে হরিণ দুটি নিজেদের জিম্মায় নিয়েছি। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে।

শরণখোলা রেঞ্জের সহকারি বন সংরক্ষক মো. জয়নাল আবেদিন বলেন, ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে অতি জোয়ার ও জলোচ্ছ্বাসের কারণে হরিণ দুটি ভেসে এসেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। উদ্ধার করা হরিণ দুটি পূর্ব সুন্দরবনে অবমুক্ত করা হবে বলেও জানান তিনি।