আগামী বাজেটে করোনা মোকাবিলা ও কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়ার বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের নবীনগর এলাকায় খন্দকার আলখাছ ও আমিনা বেসরকারি ৫০ শয্যার হাসপাতাল উদ্বোধন শেষে মন্ত্রী এ কথা জানান।

এম এ মান্নান বলেন, করোনা মোকাবিলায় পৃথিবীর সব দেশই হিমশিম খাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্যের মতো দেশ এই মহামারি মোকাবিলায় পাগল হয়ে গেছে। প্রতিবেশী দেশ ভারতে দিনে তিন-চার হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে। পাশের বাড়িতে আগুন না নিভলে, আমার বাড়িতে আগুন নিভবে না। করোনা মোকাবিলায় আমরা যুদ্ধ করে যাচ্ছি। অন্য দেশগুলোর তুলনায় আমাদের দেশে মৃত্যুর সংখ্যা কম।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাহসের সঙ্গে করোনার সঙ্গে যুদ্ধ করছেন, দেশের অর্থনীতির চাকাও সচল রেখেছেন।

তিনি বলেন, ভ্যাকসিন আমদানির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সমস্যায় পড়ে গিয়েছিল। কারণ ভারতের সঙ্গে করা চুক্তি অনুযায়ী ভ্যাকসিন দিতে পারছে না তারা। চীন ও রাশিয়া থেকে এখন ভ্যাকসিন সংগ্রহ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর হোসেন, সিভিল সার্জন ডা. শামস উদ্দিন, পৌর মেয়র নাদের বখ্‌ত, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হায়াতুন নবী, তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, হাসপাতালের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান আলখাছ উদ্দিন খন্দকার, এমডি খন্দকার মঞ্জুর আহমেদ প্রমুখ। অনুষ্ঠান শেষে সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতনও নবনির্মিত হাসপাতাল ঘুরে দেখেন।

এর আগে সকালে পরিকল্পনামন্ত্রী শান্তিগঞ্জে সুনামগঞ্জ বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজের অস্থায়ী ক্যাম্পাস পরিদর্শন করেন। পরে সকাল সাড়ে ১১টায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় ইউনিয়ন পর্যায়ে মৎস্যচাষ প্রযুক্তি সেবা সম্প্রসারণ প্রকল্পের মৎস্য চাষিদের উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে যোগ দেন।